বলপ্রয়োগ করেও মানুষকে ঘরে আটকে রাখা যাচ্ছে না। আলপনা এঁকে কি হবে! বীরভূমের এবার 'করোনা ভাইরাস' সেজে মানুষকে সচেতনতার করার পরিকল্পনা করলেন পুলিশকর্মীরা। জেলার প্রতিটি থানায় করোনা টিম তৈরি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার শ্যাম সিং।

আরও পড়ুন: লকডাউনের জেরে আগেই কাজ-হারা, বাঁধ ভাঙা প্লাবন বাকিটুকুও নিয়ে গেল দক্ষিণ ২৪ পরগণার গ্রামবাসীদের

করোনা নিয়ে আতঙ্কিত সকলেই। কিন্তু লকডাউনের জেরেই কতদিন বা ঘরে বসে থাকা যায়! সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বাইরে বেরিয়ে পড়ছেন অনেকেই। ফলে রাস্তায় ভিড়ও কমছে না। পরিস্থিতি সামলাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন পুলিশকর্মীরা।  প্রথম দিকে লকডাইন ভাঙলেই লাঠিচার্জ করা হচ্ছিল। তাতে যে খুব একটা কাজ হয়েছে, তেমনটা কিন্তু নয়। বরং পরিস্থিতি যেমন ছিল, তেমনি রয়ে গিয়েছে। মানুষকে সচেতন করতে এখন কৌশল বদলে ফেলেছে পুলিশ। মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বালুরঘাটের মতো শহরে স্ট্রিট পেইন্টিং-এর মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ। কীভাবে সংক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে, সে বার্তা দিয়েছেন শিল্পীরা। আর এবার পুলিশকর্মীরা 'করোনা ভাইরাস' সেজে রাস্তায় নামলেন বীরভূমে। 

আরও পড়ুন: মেয়ে মারা গিয়েছে বিহারে, বাংলায় লকডাউনে আটকে দিনমজুর মা

আরও পড়ুন: করোনার ভয়ে 'কোয়ারেন্টাইন'-এ, লরিতে 'সংসার' পাতলেন অকৃতদার যুবক

জেলার পুলিশকর্তাদের দাবি, রাস্তায় 'জীবন্ত করোনা ভাইরাস' দেখলে সাধারণ মানুষ যেমন ভিড় বা জমায়েত করা থেকে বিরত থাকবেন, তেমনি যাঁরা ঘরে আছেন, তাঁরাও আর বাইরে বেরোবেন না। এই কাজের জন্য জেলার প্রতিটি থানা এলাকা বিশেষ টিম তৈরি করেছে পুলিশ। সেই টিমে থাকবেন পেশাদার বহুরূপীরাও। বিশেষ পোষাক পরে গাড়িতে চেপে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরবেন 'করোনা টিম'-এর সদস্যরা। ভিড় দেখলেই হাজির হবে 'করোনা ভাইরাস'।