বিশ্বব্যাপী ত্রাস তৈরি করেছে মারণ করোনা ভাইরাস। গোটা দুনিয়ায় সংক্রমণের সংখ্যা ১৬ লক্ষের বেশি। এরমধ্যে কেবল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লক্ষ ৬২ হাজারের বেশি। মৃতের সংখ্যা ১৬ হাজার ৫০০ বেশি। আর মার্কিন মুলুকে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ছড়িয়েছে নিউইয়র্কে। যার ফলে এই শহরে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে ৭ হাজারের গণ্ডি। প্রতিদিন নিউইয়র্কে মারা যাচ্ছেন শয়ে শয়ে মানুষ। ফলে শেষকৃত্য করতে হিমশিম খাচ্ছে প্রশাসন। ফলে খোড় হচ্ছে গণকবর।

গত ২৪ ঘণ্টায় নিউইয়র্কে ১০ হাজারের বেশি কোভিড ১৯ রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। শহরে এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৫৯ হাজার ৯৩৭। যা করোনা সংক্রমণে বিশ্বে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে থাকা স্পেন ও ইতালির থেকে বেশি। স্পেনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১ লক্ষ ৫৩ হাজার। আর ইতালিতে ১ লক্ষ ৪৩ হাজার।

১৪ এপ্রিলের পর কি বাড়ছে লকডাউনের মেয়াদ, জেনে নিন সমীক্ষায় কত শতাংশ মানুষ রায় দিলেন পক্ষে 
আরও ৫ জনের শরীরে মিলল মারণ ভাইরাস, এবার ৭ লক্ষ ধারাভিবাসীর করোনা পরীক্ষার পথে বিএমসি
৭৬ দিনের লকডাউন উঠতেই উহানে বিয়ের ধুম, আবেদন জমা পড়ল ৩০০ গুণ বেশি
পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে তাতে নিউ ইয়র্ক সিটি পার্কে  অস্থায়ী গণকবর করা হতে পারে বলে ট্যুইটবার্তায় জানিয়েছেন সিটি কাউন্সিলের স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান মার্ক লেভিন।

তিনি আরও বলেন, নিউইয়র্ক বাসির জন্য বিষয়টি কঠিন হলেও পরিস্থিতি অবনতির দিকে গেলে এমনটাই করা হতে পারে। তবে যদি করোনায় মৃতের হার কমে যায় তাহলে আর এমনটা করা হবে না বলে ট্যুইটে নিশ্চিত করেন তিনি।

তবে সিটি পার্কে এখনও গণকবর খোড়া না হলেও শহরের হার্ট আইল্যান্ডে মৃতদের সমাহিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সেখানেই গণকবর খোড়া শুরু হয়েছে। সম্প্রতি নেট দুনিয়ায় ছড়িয়েছে সেই ভিডিও।

জানা যাচ্ছে,  নিউইয়র্কে করোনাভাইরাসে কেই মারা গেলে ছয় দিন অপেক্ষা করছে  কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে স্বজনেরা মরদেহ না নিলে নগরের মর্গ থেকে তা সরিয়ে হার্ট আইল্যান্ডে গণকবর পাঠান হচ্ছে। 

 
নিউইয়র্ক নগরের মেয়র অফিস থেকে জানানো হয়েছে, প্রতিদিনই শহরে করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। এই অবস্থায়  মরদেহ সমাহিত  বা শেষকৃত্য করার ক্ষেত্রে  সামাল দিতে পারছে না শহরের অনুমোদিত ফিউনারেল হোমগুলো। নিউইয়র্কের বেশিরভাগ  হাসপাতালের মর্গেই এখন  মরদেহ রাখার স্থান নেই। সেই কারণেই হার্ট আইল্যান্ডে দেহগুলি অস্থায়ীভাবে কবর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।