বিশ্বে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। ইতিমধ্যে তা ছাড়িয়ে গিয়েছে ১৬ লক্ষের গণ্ডি। কিন্তু সংক্রমণ বাড়লেও প্রতিষেধক নেই এই মারণ ভাইরাসের। গবেষকরা স্পষ্ট জানাচ্ছেন ওষুধ আবিষ্কার করতে এখনও বেশ কিছুটা সময় লাগবে। এই অবস্থায় ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন দিয়েই আক্রান্তদের সুস্থ করার চেষ্টা চালাচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। আর পৃথিবীতে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের সর্ববৃহত প্রস্তুতকারক দেশ হল ভারত। তাই সব দেশই এখন করোনাভাইরাসের চিকিৎসার জন্য  স্মরণাপন্ন হচ্ছে ভারতের। প্রথমে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের রফতানির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও সম্প্রতি তা আংশিক শিথিল করেছে  ভারত সরকার। বিশ্বের নানা দেশের দাবি মত পাঠান হচ্ছে ওষুধও। আর বিশ্বের এই কঠিন পরিস্থিতিতে মানবতার খাতিরে ভারতের এই পদক্ষেপের জন্য নানা দেশের রাষ্ট্রনায়করা প্রশংসায় ভরিয়ে দিচ্ছেন নরেন্দ্র নোদীকে। তাঁর নবতম সংযোজন হলেন ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

বর্তমানে ইজরায়েলে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা ৯,৯৬৮। এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৮৬ জনের। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বের করোনা আক্রান্ত অন্যান্য দেশের মত ভারতের কাজে ওষুধের আর্জি জানিয়েছিল ইজরায়েল সরকার। আর সেই অনুরোধ মেনেই মোদী সরকার হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন সহ ৫ টন কার্গো ওষুধ পাঠিয়েছে  ইজরায়েলে। বিশ্বের বিপদের সময় ভারত সরকারের এই পদক্ষেপে অভিভূত ইজারেয়েল প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। 

ট্যুইটে নেতানিয়াহু মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়ে লিখেছেন, "ইজরায়েলে ক্লোরোকুইন পাঠানোর জন্য আমার বন্ধু তথা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ইজরায়েলের সব নাগরিক আপনার কাছে কৃতজ্ঞ থাকবে।"

 

 

সম্প্রতি করোনা মহামারীর পরিস্থিতি নিয়ে নেতানিয়াহুর সঙ্গে ফোনে কথা হয় নরেন্দ্র মোদীর। এর আগে মাস্ক ও ওষুধ যাতে ভারত ইজরায়েলে রফতানি করে তার জন্য মোদীর কাছে অনুরোধ করেছিলেন নেতানিয়াহু। 

করোনা মোকাবিলায় ১০০ কোটি ডলার, নিজের সম্পত্তির ২৮ শতাংশ দান করে নজির গড়লেন তরুণ ধনকুবের

করোনা আক্রান্ত বিশ্বকে পথ দেখাল উহান, লকডাউনের ৭৬ দিন পর একেবারে স্বাভাবিক জীবনে শহরবাসী

দেশে গত ১২ ঘণ্টায় ৩০টি মৃত্যু, উত্তর-পূর্বেও এবার প্রাণ কাড়ল করোনা

এর আগে দেশে করোনা সংক্রমণের ঘটনা বাড়তেই ভারত সরকার হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের রফতানির উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে। কিন্তু সম্প্রতি এই ওষুধ আমেরিকায় না পৌঁছলে  ভারতকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপরে ওষুধ রফতানির ক্ষেত্রে টকিছুটা নিষেধাজ্ঞা শিথিল করে ভারত সরকার। তার পরেই ফের একবার মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়ে ওঠেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সম্প্রতি ব্রাজিলের আর্জি মেনে সেদেশও হাইড্কক্সিক্লোরোকুইন রফতানি করেছে ভারত সরকার। ওষুধ পেয়ে মোদীর প্রশংসার পাশাপাশি রামায়ণের উদাহরণ টেনে  হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনকে সঞ্জীবনীর সঙ্গে তুলনা করেছেন সেদেশের প্রেসিডেন্ট জাইর বোলসোনারোর।