গোটা বিশ্বের মত করোনাভাইরাস সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে প্রতিবেশী বাংলাদেশেও। এই অবস্থায় পরিস্থিতি যাতে আরও খারাপের দিকে না যায় সেজন্য ডাকা সহ গোটা বাংলাদেশে লকডাউন ও প্রয়োজনে জরুরি অবস্থা জারির পরামর্শ দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু। আগামী দিনে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করতে পারেই বলে আশঙ্কা করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এর প্রধান কারণ ভারতের মত বাংলাদেশও জনবহুল রাষ্ট্র। 

করোনা আক্রান্ত বিশ্বের একাধিক দেশই এখন লকডাউনের পথে এগিয়েছে। কোথাও আংশিক আবার কোথাও পুরোপুরি লকডাউন করা হয়েছে। অনেক দেশ আবা পরিস্থিতি সামলাতে জরুরি অবস্থা জারি করেছে। লকডাউন এবং জরুরি অবস্থা ঘোষণার ফলও মিলছে। দেশগুলোতে নতুন আক্রান্তের সংখ্যায় ধীরগতি  দেখা যাচ্ছে। কোথাও কোথাও আক্রান্তের সংখ্যা কমে এসেছে। আবার কোথাও কোথাও শূন্যতে চলে এসেছে। যার প্রকৃষ্ট উদাহরণ চিন। তবে হু-র প্রধান টেড্রোস আধানোম ঘেব্রেইসাস ফের একবার মনে করিয়ে দিয়েছেন লকডাউন করে করোনার বিরুদ্ধে পুরোপুরি লড়াই সম্ভব নয়। সেই কারণে এই মারণ ভাইরাসকে চিরতরে নির্মূল করতে জনস্বাস্থ্যের উপরে জোর দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি ভাইরাস সংক্রমমের উপরে আপাতত রাশ টানতে করোনা আক্রান্ত দেশগুলিকে লকডাউনের পথেই যেতে বলছেন তিনি। 

রাজপথে ছেড়ে দিয়েছেন ক্ষুধার্ত বাঘ-সিংহ, এভাবেই নাকি রাশিয়ায় করোনা আটকাচ্ছেন পুতিন

লকডাউনে বা়ড়িতে বসে বোর হচ্ছেন তরুণী বৌদি, নেচেই ভাইরাল করলেন নিজেকে

চিনকে বদনাম করছেন ট্রাম্প, জবাব দিতে ভারতকে পাশে চাইলেন জিংপিং

এদিকে ইতালির পর এবার করোনা ভাইরাসের এপিসেন্টার হতে চলেছে ট্রাম্পের দেশ। এমন সতর্কবাণী দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা 'হু'। মাজ্ঞকিন মুলুকে যেভাবে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে তাতে কিছুদিনের মধ্যেই দেশটি  এই মারণ ভাইরাসের নতুন হটস্পটে পরিণত হতে পারে বলে আশঙ্ক হু-র। এই প্রসঙ্গেই আমেরিকার বর্তমান পরিস্থিতির কথা তুলে ধরেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বর্তমানে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা৬০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃতের সংখ্যা হাজারের বেশি।  লকডাউনে নিউ ইয়র্ক, ওয়াশিংটন, লস অ্যাঞ্জিলেসের মতো শহরগুলি। চিন ও ইউরোপের পর তাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রই করোনার নতুন এপিসেন্টার হতে চলেছে বলে আশঙ্কা করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।