দিনে দিনে ভয়ঙ্কর আকার নিচ্ছে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ। গতকাল দৈনিক সংক্রমণ ১ লক্ষে ২৫ হাজারের বেশি ছিল। শুক্রবার সেই সংখ্যাকে অতিক্রম করে গেল দৈনিক পরিসংখ্যন। স্বাস্থ্য মন্ত্রক সূত্রের খবর গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৩১ হাজারের বেশি। পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মৃত্যুর সংখ্যাও। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যন অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৭৮০ জনের। করোনা আক্রান্ত দেশগুলির ক্রমতালিকায় ভারতের স্থান এখনও তৃতীয়। প্রথম স্থানে থাকা দুটি দেশ হল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিল। 

এক নজরে দেশের করোনা চিত্রঃ
২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট আক্রান্ত ১,৩১,৯৬৮
২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট মৃত্যু ৭৮০
২৪ ঘণ্টায় দেশে মোট সুস্থ  ৬১,৮৯৯

দেশে মোটা আক্রান্ত ১,৩০,৬০,৫৪২
মোট সুস্থ  ১, ১৯, ১৩, ২৯২ 
অ্যাক্টিভ কেস  ৯,৭৯,৬০৮
মোট মৃত্যু ১,৬৭,৬৪২

দেশে মোট টিকাকরণঃ ৯,৪৩, ৩৪, ২৬২

বারানসীতে জ্ঞানবাপী মসজিদের নিচে কি রয়েছে হিন্দু মন্দির, সার্ভের নির্দেশ স্থানীয় আদালতের ...
স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী দেশের করোনা আক্রান্ত রাজ্যগুলির ক্রম তালিকায় শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র । আট নম্বর স্থানে রয়েছে বাংলা। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গের মোকাবিলা করার জন্য গতকালই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। প্রতিটি রাজ্যকেই সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছেন। একই সঙ্গে সবকটি রাজ্যকে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মবিধি মেনে চলারও পরামর্শ দিয়েছেন। তবে আপাতত গোটা দেশজুড়ে লকডাউন ডাকা হবে না বলেও জানিয়েছেন। চাইলে স্থানীয় ভাবে লকডাউন জারি করা যেতে পারে বলেও জানান হয়েছে।   করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গের মোকাবিলা করার জন্য ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্রে জারি করা হয়েছে নাইট কার্ফু। বেঙ্গালুরু সহ ছটি শহরে রাত্রীকালীন বিধিনিষেধ কড়া করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কর্ণাটক সরকার। 

বেহালায় মিঠুনের রোড শো বাতিল, ফোঁস করে উঠলেন বিজেপির 'কোবরা' প্রচারক ...

করোনা আক্রান্ত দেশগুলির ক্রমতালিকা ভারতের স্থানীয় তৃতীয়। তিন কোটিরও বেশি সংক্রমিতের সংখ্যা নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াল্ডোমিটার্সের তথ্য অনুযায়ী দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল। আর তৃতীয় স্থানে ভারত। তবে ব্রাজিলের থেকে ভারতের ফারাক খুব একটা নেই। ভারতে এখনও পর্যন্ত ৯ কোটিরও বেশি মানুষকে টিকা দেওয়া হয়েছে। সংক্রমণ রুখতে বাড়ান হয়েছে টেস্টের পরিসংখ্যাও।

মন্দিরের মুক্তি, এই স্লোগানকেই তামিল ভোটে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছেন সদগুরু .