অনেকসময়ই ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির সমালোচকরা বলে থাকেন তিনি অত্যন্ত উদ্ধত। রবিবার অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দ্য ওভালে এক ঘটনাতেই সেইসব সমালোচনাকে একেবারে বাউন্ডারির বাইরে পাটিয়ে দিলেন তিনি। প্রবল প্রতিপক্ষ স্টিভ স্মিথ-এর জন্য যে কাজ তিনি এদিন মাঠে করলেন, তারপর তাঁর ৮২ রানের দুরন্ত ইনিংস চলে গিয়েছে পিছনের সারিতে। ক্রিকেট বিশ্ব মুগ্ধ ভারত অধিনায়কের বিরাট হৃদয়ের পরিচয়ে।    

এদিন বিরাট যখন ব্যাট করছিলেন সেই সময় এক বছর নির্বাসন কাটিয়ে চলতি বিশ্বকাপেই অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলে ফেরা স্টিভেন স্মিথকে পাঠানো হয় ডিপ মিড উইকেটে ফিল্ডিং করতে। আর বাউন্ডারি লাইনের কাছে আসতেই ভারতীয় সমর্থকে ভরা নীলে নীল গ্যালারি থেকে ক্রমাগত তাঁর উদ্দেশ্যে 'চিটার' অর্থাত ধোকাবাজ ধ্বনি উঠতে থাকে।

২০১৮ সালের মে মাসলে কেপটাউন টেস্টে ওয়ার্নার ও ব্যানক্রফ্টের সঙ্গে তৎকালীন অজি অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথও বল বিকৃতির অপরাধে এক বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হন। চলতি বিশ্বকাপে ইংরেজ দর্শকরা ক্রিকেট মাঠে তাঁদের চিরশত্রু অস্ট্রেলিয়ার স্মিথ ও ওয়ার্নারকে যে জামাই আদর করবে না তা আগেই আশঙ্কা করা হয়েছিল। কিন্তু এদিন ভারতীয় দর্শকরাও  একই কম বিরোধিতার মুখে ফেলেন স্মিথকে।

তাদের চিৎকার এতটাই জোরে ছিল, যে ২২ গজে ব্যাট করা বিরাটের কানেও তা পৌঁছায়। হঠাতই বিরাটকে দেখা যায় ক্রিজ ছেড়ে ওই দর্শকদের দিকে এগিয়ে এসে হাত নেড়ে ইশাডরা করতে। হাতের ইশারাতেই তিনি ওই অংশের ভারতীয় দর্শকদের স্মিথের জন্য হাততালি দেওযার কথা বলেন। দর্শকদের আগের আচরণে যে তিনি অসন্তুষ্ট, মাথা নেড়ে তাও প্রকাশ করেন।

পরে তাঁকে স্মিথের সঙ্গে হাতও মেলাতে দেখা যায়। সেই সময় ধারাভাষ্য দিচ্ছিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়। তিনি টেলিভিশনেই বিরাটকে ক্রিকেটের শ্রেষ্ঠ দূত বলে প্রশংসা করেন। স্পষ্টই প্রাক্তন অধিনায়কের গলায় বর্তমান অধিনায়কের জন্য গর্ব ঝড়ে পড়ছিল।

পরে সাংবাদিক সম্মেলনে ওই বিশেষ মুহূর্ত নিয়ে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, তিনি স্মিথের সঙ্গে একাত্ম বোধ করেছিলেন। বল বিকৃতি সংক্রান্ত যা কিছু ঘটেছিল, তা সুদূর অতীতে ঘটনা। স্মিথ সেই অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন, ক্ষমা চেয়েছেন, শাস্তিও ভোগ করেছেন। এখন তিনি তাঁর দলের হয়ে ভাল খেলতে চাইছেন। বিরাট বলেন তিনি স্মিথের জায়গায় থাকলেও দর্শকদের ওই আচরণে কষ্ট পেতেন। তাই তিনি ওই কাজ করেন।

বিরাট জানান, পরে তিনি স্মিথের সঙ্গে আলাদা করে কথাও বলেছেন। ভারতীয় দর্শকদের হয়ে তাঁর কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছেন।

স্মিথ শুধু প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার একজন ক্রিকেটারই নন, তিনি আধুনিক যুগের ব্যাটিং 'ফ্যাব ফোরে'ও বিরাটের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী। ভারত অধিনায়কের এই হৃদয়গ্রাহী মুহূর্তের ভিডিওটি আইসিসিও তাদের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেছে। তাঁর এই অসাধারণ সৌজন্য ক্রিকেট বিশ্বের সর্বস্তরের মানুষের মন জিতে নিয়েছে।