ইংল্য়ান্ডের বিরুদ্ধে ৩১ রানে হারা ম্যাচেও একটি রেকর্ড করে ফেললেন ভারতীয় লেগ স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল। তবে এই রেকর্ড গর্বের নয়, এই রেকর্ড লজ্জার। রবিবার এজবাস্টনে ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে একটিও উিকেচট শিকার করতে না পেরেল চাহাল মোট ৮৮ রান দিলেন। বিশ্বকাপে একটি ম্যাচে এর থেকে বেশি রান কোনও ভারতীয় দেননি।    

আর এরফলে ১৬ বছর পর শাপমুক্তি ঘটল ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা পেসার জাভাগাল শ্রীনাথের। ২০০৩ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে শ্রীনাথ রিকি পন্টিংদের অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১০ ওভারে বিনা উইকেটে ৮৭ রান দিয়েছিলেন। সেই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া ৫০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ৩৫৯ রান করেছিল। পন্টিং অপরাজিত ১৪০ রান করেছিলেন। এতদিন এটাই কোনও ভারতীয়ের একটি বিশ্বকাপের ম্যাচে সবচেয়ে খারাপ বোলিং পরিসংখ্যান ছিল।  

আরও পড়ুন - থামল ভারতের বিজয়রথ, সেমির পথে ফিরল ইংরেজদের বিশ্বকাপ গাড়ির চাকা

আরও পড়ুন - পাক সমর্থকদের মুখে ভারতের জাতীয় সঙ্গীত! মুচকি হেসে কী বললেন বিরাট

আরও পড়ুন -  রোখা যাচ্ছে না শামিকে - এবার ৫ উইকেট, হল রেকর্ড! হাসিন কী বলবেন

এদিন চাহালের রেকর্ডে সেই লজ্জামুক্ত হলেন শ্রীনাথ। কিন্তু প্রশ্ন হল চাহালের এই খাপার পরিসংখ্যানের লজ্জা কি ভারতীয় লেগ স্পিনারেরই? ম্যাচের পর বিরাট কোহলি পিচের চরিত্র, বাউন্ডারির মাপ নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন। ইংল্যান্ডে সবচেয়ে বেশি স্পিন সহায়ক পিচ হয়ে থাকে এজবাস্টনেই। সেখানে রবিবারের পিচ থেকে কোনও সুবিধা পাননি স্পিনাররা। তার উপর বাউন্ডারির মাপ একদিকে মাত্র ৫৯ মিটার হওয়ায় সহজেই স্পিনারদের উড়িয়ে দিয়েছেন ইংরেজ ব্যাটাররা।

তাঁরা নিশানা করেছিলেন ভারতীয় স্পিনারদেরই। চাহালের পাশাপাশি কুলদীপ যাদবও ১০ ওভারে ৭২ রান দিয়েছেন। তিনি অবশ্য একটি উইকেট পেয়েছেন। তাতেও তাঁর থেকে রবীন্দ্র জাদেজার ক্যাচের কৃতিত্ব বেশি ছিল। বিশ্বকাপে পিচ নিরপেক্ষ হওয়ার কথা। সেখানে ইংল্যান্ড প্রতি ম্যাচেই তাদের পছন্দসই উইকেট পাচ্ছে বলে প্রথম থেকেই অভিযোগ ছিল। ভারত ম্যাচে তার পরিষ্কার প্রমাণ পাওয়া গেল।