ওয়েস্টইন্ডিজ সফরের পর ভারতীয় দলের সাপোর্ট স্টাফে বড় বদল দেখা যেতে পারে। প্রধান কো সহ সবকটি পদের জন্যই নতুন করে আবেদনপত্র চাওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। ভারতের প্রধান কোচ হিসেবে থাকতে গেলে রবি শাস্ত্রীকেও ফের একবার নতুন করে আবেদন করতে হবে।

ভারতীয় দলে বর্তমানে সাপোর্ট স্টাফ হিসেবে রয়েছেন প্রধান কোচ রবি শাস্ত্রী, বোলিং কোচ ভরত অরুণ, ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার ও ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর। এঁদের চার জনেরই চুক্তি ছিল বিশ্বকাপ ২০১৯ পর্যন্ত। ভারত বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার পরই ভারতীয় সমর্থকদের একাংশ শাত্রী বিদায়ের আওয়াজ তুলেছিলেন। কিন্তু সামনেই ওয়েস্টইন্ডিজ সফর থাকায় আপাতত ৪৫ দিনের জন্য প্রত্যেকেরই চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন - কোহলি-রোহিত গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, বড় সিদ্ধান্ত নিল বিসিসিআই! এবার কি দুই অধিনায়কের পথে

আরও পডু়ন - আউট হওয়ার আফশোষ যাচ্ছেই না! ভেঙে পড়া জাদেজাকে সামলাতে পারেননি স্ত্রী

আরো পড়ুন - বিরাটকে সরিয়ে রোহিত ! প্রশ্নটা অস্বস্তিকর অথচ এড়ানোরও উপায় নেই

এঁরা প্রত্যেকেই ফের আবেদন করতে পারেন। তবে ফিজিকাল ট্রেনার ও ফিজিও পদে নতুন মুখ আসা একেবারে নিশ্চিত। বিশ্বকাপের পরই কাজ থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন শঙ্কর বসু ও প্যাট্রিক ফারহার্ট।  

৩ সেপ্টেম্বর ভারতের ওয়েস্টইন্ডিজ সফর শেষ হচ্ছে। তারপরই ভারতে খেবলতে আসবে দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদের বিরুদ্ধে খেলা শুরু হবে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। তার আগেই প্রধান কোচ ও অন্যান্য সাপোর্ট স্টাফ নিয়োগের কাজ শেষ করে নিতে চাইছে বিসিসিআই। সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে বোর্ডের এক কর্তা জানিয়েছেন, এক দুই দিনের মধ্যেই বোর্ডের ওয়েবসাইটে  সাপোর্ট স্টাফের সবকটি পদে আবেদনের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হবে।

অনিল কুম্বলেকে বিতর্কিতভাবে সরিয়ে ২০১৭ সালে ভারতীয় দলের কোচ হয়েছিলেন রবি শাস্ত্রী। তাঁর কোচিং-এ ভারত কোনও আইসিসি টুর্নামেন্ট না জিতলেও, প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জিতেছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথমবার একদিনের সিরিজেও চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।