১৪ তারিখ শুরু হয়ে ১৬ তারিখেই শেষ হয়ে গেছে ইন্দোর টেস্ট। ভারত বাংলাদেশ সিরিজের প্রথম টেস্ট নিয়ে সবার মধ্যে যে খুব আগ্রহ ছিল তেমনটা একেবারেই বলা যাবে না। বরং অনেক বেশি ফোকাস রয়েছে দুই দলের দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে। কারণ এই টেস্ট ম্যাচ যে ঐতিহাসিক। ইডেনে হতে চলেছে দেশের প্রথম দিন রাতের টেস্ট। পাশাপাশি ভারত ও বাংলাদেশ দুই দলও প্রথমবার গোলাপী বলের ক্রিকেটে মাঠে নামতে চলেছে। ইন্দোর টেস্ট শুরু হওয়ার আগে থেকেই ভারতীয় শিবিরে ঢুকে পরেছে গোলাপী বলের চমক। ইন্দোরে লাল বলে ম্যাচ খেলার পাশাপাশি, খেলা শেষ হওয়ার পর লাইট জ্বালিয়ে গোলাপী বলে অনুশীলন করেছেন রোহিত- অশ্বিনরা। 

আরও পড়ুন - দেশের প্রথম দিন রাতের টেস্ট, ইডেনকে পরামর্শ অ্যাডিলেডের

ইডেনে গোলাপী বলে ক্রিকেট নিয়ে উন্মাদনা তুঙ্গে। একাধিক অনুষ্ঠান যেমন আছে, তেমনই আছে টিকিটের তুমুল চাহিদা। এর মাঝেই সবার ফোকাস রয়েছে ইডেনের ২২ গজের দিকে। কতটা তৈরি হয়েছে ক্রিকেটর নন্দন কাননের উইকেট। কিউরেটর সুজন মুখোপাধ্যায় এক সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন প্রথম দিন রাতের ম্যাচের জন্য পুরোপুরি তৈরি ইডেনের ২২ গজ। সুজন মুখোপাধ্যায়ের আশা ভাল ক্রিকেট হবে ২২ গজে। ম্যাচ দেখে আনন্দ পাবেন দর্শকরা। 

আরও পড়ুন - দুরন্ত কামব্যাক, ব্যাট উচিয়ে জবাব দিলেন পৃথ্বি

গত সপ্তাহে বুলবুলের জন্য উইকেট তৈরি করাটা চ্যালেঞ্জের মুখে পরেছিল। টানা দুদিনের বৃষ্টিতে কাজ অনেকটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কিন্তু সুজন মুখোপাধ্যায় ও তাঁর টিম চলতি সপ্তাহেই সব কাজ শেষ করেছেন। তাই ইডেনের ২২ গজ তৈরি । তবে একটা আক্ষেপ থেকে যাচ্ছে কিউরেটরের। সুজন চেয়েছিলেন উইকেট তৈরি করে ঘরোয়া ক্রিকেটের একটা ম্যাচ সেই উইকেটে খেলাতে। যাতে পরীক্ষা করে নেওয়া যেতে পারে দিন রাতের টেস্টের ২২ গজ। কিন্তু সেটা হচ্ছে না। বৃষ্টির জন্য সেই পরিকল্পানা পন্ড হয়েছে। ইডেনে ইতিমধ্যেই পৌছে গেছে গোলাপী ম্যাচ বল।  এরমধ্যেই সেই বলকে ২২ গজে ফেলে পরীক্ষা করে নেবেন সুজন। মঙ্গলবার শহরে আসার কথা দুই দলের। তার আগে সব কাজ শেষ করে ফেলতে মরিয়া ইডেন গার্ডেনসের প্রধান পিচ কিউরেটর। 

আরও পড়ুন - প্রতিপক্ষের জন্য দুশ্চিন্তা হচ্ছে বিরাটের, এরপর বুমরা এলে কী হবে