রাজ্য তথা দেশ জুড়ে ক্রমেই বেড়ে চলেছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। আক্রান্তের নিরিখে ইতিমধ্যেই তৃতীয় স্থানে চলেছে এসেছে ভারত। ক্রীড়া ক্ষেত্রেও অব্যাহত রয়েছে মারণ ভাইরাসের প্রকোপ। এবার ফের করোনার থাবা সিএবিতে। কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন ডসিএবি-র সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং দফতরের এক অস্থায়ী কর্মী। যেই খবর ছড়িয়ে পরেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে ইডেন গার্ডেন্সে। ঘটনার পর ইতিমধ্যেই সাত দিনের জন্য সিএবি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃবিরাট কোহলির বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ,প্রমাণিত হলে হতে পারে শাস্তি

তার নাম প্রকাশ্যে না আনলেও, করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসার পরই তাকে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখনও স্থিতিশীল রয়েছে আক্রান্তেপ অবস্থা। চিকিৎসকরা পর্যবেক্ষণে রখেছেন তাকে। অপরদদিকে ওই ব্যক্তির করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরই আতঙ্ক গ্রাস করেছে সিএবির সকল কর্মীদের মধ্যে। সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া জানিয়েছেন,'গত শুক্রবার দফতরে এসেছিলেন উনি। আজ পর্যন্ত ধরা হলে আট দিন আগে। চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়েই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, আগামী সাত দিন অফিস বন্ধ রাখার। যদিও প্রত্যেক দিন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই অফিস স্যানিটাইজ করা হচ্ছে। কর্মীদেরও প্রত্যেক দিন আসতে হচ্ছে না। তবুও অ্যাকাউন্টস বিভাগ চালু রাখতেই হয়েছিল। আগামী সাত দিন সব বন্ধ থাকবে।'

আরও পড়ুনঃবর্তমান দল থেকে কাকে ২০০৩ বিশ্বকাপ দলে নিতেন,মায়াঙ্কের প্রশ্নের উত্তরে সৌরভ বললেন

আরও পড়ুনঃ'এত হারিয়েছি যে ভারতীয় ক্রিকেটাররা একসময় দয়া ভিক্ষা চাইত',সুস্থ হয়েই ভারতের বিরুদ্ধে তোপ দাগা শুরু আফ্রিদির

এর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন বর্তমান বাংলা দলের সিলেক্টর ও বাংলার রঞ্জি জয়ী দলের সদস্য সাগরময় সেন শর্মা। যদিও মারণ ভাইরাসকে হারিয়ে জীবন যুদ্ধে জয়ী হয়েছেন তিনি। ইতিমধ্যেই মরসুমের সব খেলাও বন্ধ রেখেছে সিএবি। বাংলা দলের অনুশীলও কবে থেকে শুরু হবে তা নিয়ে এখনও কোনও সম্ভাবনা নেই। এবার নতুন করে আরও এক সিএবি কর্তার করোনা আক্রান্তের খবর নতুন করে উদ্বেগ বাড়িয়েছে সকলের মধ্যে।