একই তাঁকে নিয়ে বা বলা যায় তাঁর অবসর নিয়ে জল্পনার অন্ত নেই। তার মধ্যেই আবার নতুন খবর ছড়িয়ে পড়ল ধোনিকে নিয়ে। মুম্বাইয়ের এক সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে ধোনি নাকি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজেও খেলবেন না। প্রাক্তন ভারত অধিনায়েক নাকি বোর্ড কর্তাদের জানিয়েছেন নভেম্বর পর্যন্ত তাঁকে বাইরে রাখতে। আর এই খবর সত্যি হলে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে আসন্য টি২০ সিরিজেও দেখা যাবে না মাহিকে। দেখা যাবে না বিজয় হাজারে ট্রফিতে রাজ্য দলের হয়েও। আর তহলে চলতি বছরের ডিসেম্বরে ধোনিকে পাওয়া যেতে পারে ভারতীয় দলের জার্সি গায়ে। তখন ক্যারেবিয়ানরা আসবে ভারত সফরে। হোল্ডারদের বিরুদ্ধে ডিসেম্বরে শুরু হবে টি২০ সিরিজ। 

আরও পড়ুন - বাংলা ক্রিকেটের আস্থা সৌরভেই, ফের সিএবির দায়িত্বে মহারাজ অ্যান্ড কোং

বিশ্বকাপের পর থেকে ক্রিকেটার বাইরে ধোনি। বিশ্বকাপের পর ভারতীয় দল যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গেল তখন ধোনি জানিয়েছিলেন তিনি দুমাসের ছুটি নিতে চান। কারণ হিসেবে জানানো হয়েছিল তিনি ভারতীয় সেনায় নিজের ব্যাটেলিয়ানের সঙ্গে কাজ করতে চান। কাশ্মীরে গিয়ে ধোনি সেই কাজও করেন। তারপর আবার ছুটি কাটাতে চলে যান দেশের বাইরে। কয়েকদিন আগেই রাঁচী ফেরেন মাহি। এবার নাকি আবারও ছুটি বাড়িয়ে দেওয়ার আবেদন করেছেন ধোনি। 

আরও পড়ুন - টি২০ বিশ্বকাপের আগে তরুণদের ধারাবাহিক ভাবে দলে দেখতে চান ধাওয়ান

বিশ্বকাপের পর থেকেই ধোনির অবসর নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। কিছুদিন আগেই বিরাট কোহলির একটি টুইট দেখে ক্রিকেট মহলের মনে হয়েছিল সেদিনই ধোনি অবসর নিতে চলেছেন। পরে বিরাট জানান এমন কোনও খবর তাঁর জানা ছিল না। ধোনি নিয়ে করে তাঁর টুইট থেকে শিক্ষা পেয়েছেন বলেও জানান বিরাট। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজের জন্য ভারতীয় দল ঘোষণার পর জাতীয় দলের নির্বাচক প্রধান এমএসকে প্রসাদকে জানান ধোনির অবসর নিয়ে তাঁর কিছু জানা নেই। দিন দুয়েক আগেই সুনীল গাভাস্কার বলেন ধোনিকে ছাড়াই এবার ভাবতে হবে ভারতীয় দলকে। তরুণদের পক্ষেই সওয়াল করেন সানি। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে ধোনির ছুটি বৃদ্ধির খবর নতুন করে জল্পনা উস্কে দিল। মাহি কি আর জাতীয় দলের জার্সিতে নামবেন? নাকি লম্বা ছুটি কাটিয়ে আগামী বছরের টি২০ বিশ্বকাপের জন্য নিজেকে তৈরি করে ফিরে আসবেন? এই প্রশ্নই এখন ঘোরপাক খাচ্ছে ভারতীয় ক্রিকেটের অন্দর মহলে। 

আরও পড়ুন - ভারত পৌছাতে নাজেহাল অবস্থা ফাফ ডুল্পেসির, ক্ষোভ উগরে দিলেন টুইটে