আইপিএল ২০২০ শুরু হতে বাকি নেই এক মাসও। তার আগে ফের বড়সড় ধাক্কা খেল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। যতই সমস্থার সমাধান করার চেষ্টা করছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সমস্যা যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না বোর্ডের। আইপিএল শুরু হওয়ার আগে ফের আর্থিক দিক থে ধাক্কা খেল বোর্ড। এমনিতেই করোনা ভাইরাসের কারণে সঠিক সময়ে আইপিএল না করতে পারার কারণে বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে বোর্ডকে। তারপর দেশ জুড়ে চিন বিরোধী আবহের জন্য ছেড়ে দিতে হয়েছে ভিভোর স্পনসরসিপও। বছরে বোর্ডকে ৪৪০ কোটি টাকা দিত ভিভো। তার পরিবর্তে নতুন স্পনসর এলেও সেই চুক্তির পরিমাণ ভিভোর তুলনায় প্রায় অর্ধেক। নতুন স্পনসর ড্রিম ইলেভেনের সঙ্গে ২২২ কোটি টাকার। তারপরও পরিস্থিতি অনেকটা সামাল দিলেও, আইপিএলের ঠিক আগেই ফের চলে গেল আইপিএলের স্পনসর।

আরও পড়ুনঃবিজেপি-র মুখ্যমন্ত্রী পদের মুখ কি সৌরভ, সরকারি জমি ফেরানোয় বাড়ছে জল্পনা

আইপিএলের মূল স্পনসর ছাড়াও বেশ কয়েক কো স্পনসরের সঙ্গে যোগ রয়েছে। তাদের মধ্যে অন্যতম হল ফিউচার গ্রুপ। এবার  আইপিএলের সহযোগী স্পনসরের তালিকা থেকে নিজের নাম সরিয়ে নিল ফিউচার গ্রুপ। এর পেছনেও কারণ সেই করোনা ভাইরাস। করোনা মহামারির জন্য এই মুহূর্তে ফিউচার গ্রুপের আর্থিক পরিস্থিতি ভালো নয়। সংস্থাটির মালিকানা বদল হতে পারে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই। রিলায়েন্সের হাতে ফিউচার গ্রুপের মালিকানা চলে যেতে পারে। মালিকানা সংক্রান্ত রদবদলের পর্যায়ে রয়েছে বলেই এই মুহূর্তে আইপিএলে টাকা খরচ করা সম্ভব হবে না তাদের পক্ষে। এক সিনিয়র বোর্ড কর্তা জানিয়েছেন, ‘হ্যাঁ, ফিউচার গ্রুপ আইপিএলের স্পনসরশিপ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। সেকারণেই আইপিএলের ওয়েবসাইট থেকে ওদের লোগো সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মহামারির শুরু থেকেই ফিউচার গ্রুপ আর্থিক সমস্যায় রয়েছে। তাই ৪০ কোটি টাকা আইপিএলে খরচ করার মতো অবস্থায় যে ওরা থাকবে না, এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।’

আরও পড়ুনঃজন্মদিনের পার্টিতে উদ্দাম নাচ, তারপরই করোনা আক্রান্ত উসেইন বোল্ট

আরও পড়ুনঃকরোনা আক্রান্ত বোল্টের জন্মদিনের পার্টিতে ছিলেন ক্রিস গেইল, মাথায় হাত কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের

মন্দার বজারে ৪০ কোটি টাকার ক্ষতিও বিসিসিআইয়ের কাছে বড় ক্ষতি। এমনিতেই ভিভোর সঙ্গে চুক্তি বিচ্ছেদের ফলে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের ক্ষতি হয়েছে ২১৮ কোটি টাকা। তারউপর ফিউচার গ্রুপের সরে যাওয়া একটু হলেও চিন্তা বাড়িয়েছে বিসিসিআইয়ের। আইপিএলের আগে আরও একটি সহযোগি স্পনসর নিয়োগ করতে হবে বোর্ডের কর্তাদের। তবে প্রতিযোগিয়াতায় এর ফলে যে কোনও প্রভাব পড়বে না জানানো হয়েছে বিসিসিআইয়ের তরফে।