লাদাখের গালওয়ান উপতক্যায় চিনা হামলা ২০ জন ভারতীয় সেনার শহীদ হওয়ার পর থেকেই উত্তাল গোটা দেশে। পালটা মারে হতাহত হয়েছে ৪৩ জন চিনা সেনা। ১৯৬২সালের পর আবার লাদাখে ভারত-চিন সীমান্ত অগ্নিগর্ভ। প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উঠছে চিন বিরোধী স্লোগান। সরকারের কাছে চিনকে যোগ জবাব দেওয়ার দাবি জানানোর পাশাপাশি উঠেছে সমস্ত চিনা পণ্য বর্জনের আওয়াজও। চিনা দ্রব্যে আগুন ধরিয়েও চলছে প্রতিবাদ। উঠেছে আইপিএল থেকে সমস্ত ধরনের চিনা স্পনসর বর্জনের দাবি। এই পরস্থিতিতে প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে চিনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন হরভজন সিং। একইসঙ্গে কোনও চিনা বিজ্ঞাপনের কাজ না করার সিদ্ধান্তের কথাও জানিয়েছেন ভাজ্জি।

আরও পড়ুনঃআজব ঘটনা, ১০ গোল হজম করেও ম্যাচের সেরা গোলরক্ষক

পরিত্যাগ করা হোক চিনা দ্রব্য। স্মার্ট ফোন থেকে ডিলিট করে দেওয়া হোক চিনা অ্য়াপ। চিনের সঙ্গে বিচ্ছিন্ন করা হোক সব ধরনের অর্থনৈতিক সম্পর্ক। কয়েক দিন ধরেই এই দাবিগুলিকে সামনে রেখে দেশ জুড়ে চলছে আন্দোলন। এই প্রসঙ্গে হরভজন সিম বলেন,এরপর থেকে আর চিনা প্রোডাক্টের কোনও বিজ্ঞাপন করবেন না তিনি। তাঁর বিশ্বাস, আরও অনেক ব্র্যান্ড রযেছে। স্পনসর রয়েছে। তাই চিনা কোম্পানির প্রচার না করলেও সমস্যা হবে না ভারতের। আইপিএল নিজেই একটি ব্র্যান্ড। তার আলাদা করে কোনও ব্র্যান্ডের দরকার নেই বলেও জানিয়েছেন হরভজন সিং।

আরও পড়ুনঃআইপিএলে বাতিল করতে হবে সমস্ত চিনা স্পনসর, বিসিসিআইকে হুঁশিয়ারী বণিকসভার

আরও পড়ুনঃঅবস্থান বদল বিসিসিআইয়ের, আইপিএলে চিনা স্পনসর নিয়ে বৈঠকে গভর্নিং কাউন্সিল

এছাড়াও ভারতের তারকা অফ স্পিনার জানিয়েছেন,'আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার জন্য চিনকে বয়কট করার এটাই আদর্শ সময়। সবকিছুই ভারতে তৈরি করা সম্ভব। সেই ক্ষমতা ও যোগ্যতা আমাদের দেশের আছে। আমরা চাইলেই চিনা সামগ্রী ব্যবহার বন্ধ করতে পারি। ওরা যখন আমাদের জওয়ানদের আক্রমণ করছে, তখন ওদের জিনিস ব্যান করে দেওয়াই উচিত। কেন আমাদের টাকায় ওদের দেশ চালাতে দেব? যাঁরা বয়কটের ডাক দিয়েছে, আমি তাদের পাশে আছি।' হরভজনের এই ঘোষণাকে সমর্থন করেছে দেশবাসী। তারকা ক্রিকেটার হওয়ার পরও দেশের স্বার্থে যেভাবে মুখ খুলেছেন ভাজ্জি ও চিনের তীব্র সমালোচনা করেছেন, তাকে কুর্ণিশ জানিয়েছে দেশবাসী। এখন দেখার বিষয় আগামী দিনে আরও কোন কোন ক্রিকেটার সামনে এগিয়ে আসেন চিন বিরোধী আন্দোলনে।