শনিবারই সামনে এসেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট ও ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে তাঁর মন্তব্য। সেই নিয়ে হৈচৈ শুরি হয়ে যায় পাক ক্রিকেটের অন্দর মহলে। রবিবার আরও একটি কথা এল প্রকাশ্যে। পাকিস্তানের এক সাংবাদিক একটি নতুন তথ্য প্রকাশ করলেন। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে সেই পাক সাংবাদিক ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে শোয়েবের একটি কোট প্রকাশ করেন। তাঁকে শোয়েব বলেছিলেন, ‘ম্যাচ ছাড়ার জন্য বুকিরা আমার, এক মিলিয়ন মার্কিন ডলার, দুটি মার্সেডিজ সি ক্লাব গাড়ি ও ফুলহ্যামে একটি বাড়ি দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিল। আমি সেই লোকটিকে মেরে দরজা বন্ধ করে দিয়েছিলাম। ’

আরও পড়ুন - বৃষ্টিতে ধুয়ে গেল প্রথম টি-২০ ম্যাচ, নতুন নজির গড়লেন পাক পেসার ইরফান

 

 

শনিবার সামনে আসা ইন্টারভিউতে  শোয়েব বলেছিন তিনি পাকিস্তান ক্রিকেটের সঙ্গে তিনি কখনও বেইমানি করতে চাননি। তাই চারিদিকে বুকি ঘুড়ে বেড়ালেও তাদের ফাঁদে তিনি পা দেননি। এছাড়াও শোয়েব বলেছিলেন, ‘ যখন মাঠে নামতাম ২১ জনের বিরুদ্ধে খেলতে হত। ১১ জন প্রতিপক্ষ দলের আর ১০ জন নিজের দলের। কারণ বুঝতেই পারতাম না কে ম্যাচ ফিক্সিং করছে। তখন ম্যাচ ফিক্সিংয়ের রমরমা বাজার। ফিক্সাররা আমাদের ঘিড়ে থাকত। একবার আফিস আমাকে বলেছিল কোন কোন ম্যাচে ও গড়াপেটা করেছে এবং কী ভাবে করেছে।’ 

আরও পড়ুন - ভারতীয় অ্যাথলেটিক্সে বয়েস ভঁড়ানোর দিন শেষ, হাতিয়ার অত্যাধুনিক প্রযুক্তি

ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে মন্তব্য করে এখন খবরে রয়েছেন প্রাক্তন পাক ফাস্ট বোলার। অনেক মনে করছেন শোয়েব এই ধরনের মন্তব্য করে খবরে থাকার চেষ্টা করছেন। আবার কারও মতে শোয়েব পাক ক্রিকেটের এমেন অনেক অন্ধকার দিক জানেন যা আস্থে আস্থে সামনে আসবে। তবে রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেসকে যারা পছন্দ করেন না তাঁরাও কিন্তু  ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে একবারও শোয়েবের দিকে আঙ্গুল তুলতে পারবেন না। 

আরও পড়ুন - ক্রিকেট ছেড়ে কাঁকড়া চাষ, জানুন শাকিবের নতুন ব্যবসার খবর