সম্প্রতি  বিসিসিআইয়ের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার রাহুল জোহরিকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। মাঝে বেশ কিছু সময় ফাঁকাই ছিল বিসিসিআইয়ের সিইও পদ। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে রাহুল জোহরির মত কাউকে বিপূল অর্থ দিয়ে রাখতে রাজি ছিল না বিসিসিআই।  ২০১৬ সালে প্রখ্যাত এজেন্সি কর্ন ফেরি মারফৎ রাহুল জোহুরিকে নিয়োগ করেছিল ভারতীয় বোর্ড। রাহুল জোহরির পরবর্তী সিইও ঠিক না হওয়া পর্যন্ত বিসিসিআই অন্তর্বর্তীকালীন ভিত্তিতে চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার হলেন হেমাঙ্গ আমিন।

আরও পড়ুনঃক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে বেছে নিয়েছেন অন্য পেশা,জানুন এমন ক্রিকেটারদের গল্প

হেমাঙ্গ এতদিন ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগের চিফ অপারেটিং অফিসার বা সিওও'র ভূমিকা পালন করতেন, যাঁকে রিপোর্ট করতে হতো বিসিসিআই সিইও রাহুল জোহরির কাছে। ২০১৭ সাল থেকে আইপিএলের সঙ্গে জড়িত হেমাঙ্গ এবার বিসিসিআই সিইও ভূমিকা পালন করবেন, যতদিন না ভারতীয় বোর্ড নতুন চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার নিয়োগ করছে। আশা করা যাচ্ছে যে, আগামী ২ মাসের মধ্যেই ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড নতুন সিইও খুঁজে নেবে। নতুন দায়িত্বভার পেয়ে স্বভাবতই খুশি হেমাঙ্গ আমিন। দায়িত্ব সহকারে নিজের পদ সামলানোর আশ্বাস দিয়েছেন এতদিন আইপিএলের দায়িত্ব সামলানো হেমাঙ্গ।

আরও পড়ুনঃবিশ্বকাপের ইতিহাসে সেরা ফাইনাল,ব্রিটিশদের বিশ্বজয়ের বর্ষপূর্তি

আরও পড়ুনঃ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনাল,সুপার ওভারের আগে সিগারেট ব্রেক নিয়েছিলেন বেন স্টোকস

হেমাঙ্গের নিয়োগের পর প্রাতমিকভাবে কিছুটা স্বস্তিতে বিসিসিআই। এবার তারা একটু সময় নিয়ে যোগ্য পরবর্তী সিইও-র খোঁজ চালাতে পারবেন। হেমাঙ্গের হাতে দায়িত্ব দেওয়া নিয়ে এক বোর্ড কর্তা বলেন, ‘যতদিন না নতুন সিইও দায়িত্ব নিচ্ছে, বোর্ড হেমাঙ্গ আমিনকে অন্তর্বর্তীকালীন ভিত্তিতে বিসিসিআই সিইওর দায়িত্ব পালন করতে বলেছে। বোর্ড এই বিষয়ে আলোচনা করে বিজ্ঞাপন দেবে। তাড়াতাড়িই বিসিসিআই সিইও পদের জন্য আবেদনপত্র চাওয়া হবে। আশা করা হচ্ছে আগামী দু'মাসের মধ্যেই নতুন সিইও নিয়োগ করা সম্ভব হবে।' হেমাঙ্গ আমিনের আইপিএলের মত গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের দায়িত্ব সামলানোর অভিজ্ঞতা থাকার কারণেই তাকে অন্তবর্তী কালীন বিসিসিআই সিইও পদে নিযুক্ত করা হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফে।