এখনও পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আম্পয়ার হিসেবে নিজের বিচক্ষণতার জন্য যে সকল আম্প্য়ার প্রশংসিত হয়েছেন তাদের মধ্যে মধ্যে স্টিভ বাকনর অন্যতম। বর্তমান যুগের এত প্রযুক্তির সাহায্য ছাড়াও অনেক কঠিন সিদ্ধান্ত নিজেদের বিচক্ষণতার জোরে সঠিকভাবে দিয়েছেন স্টিভ বাকনর। কিন্তু ভারতীয় দলের ক্ষেত্রে স্টিভ বাকনারের ট্র্যাক রেকর্ড ততটা ভাল নয়। ভারতের একাধিক ম্যাচে ভুল সিদ্ধান্ত দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে ক্যারেবিয়ান আম্পায়ারের বিরুদ্ধে। এর আগে সচিনকে দুবার ভুল আউট দিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেছিলেন বাকনার। এবার ফের স্বীকারোক্তি দিলেন প্রাক্তন আম্পায়ার। বাকনারের স্বীকারোক্তি, ১২ বছর আগে ‘মাঙ্কিগেট’ বিতর্কে বিদ্ধ ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিডনি টেস্টে তার দুটি ভুল সিদ্ধান্তের জন্য হারতে হয়েছিল ভারতকে।

আরও পড়ুনঃঅবসরের পর কী করবেন বুঝতে পারছিলেন না দ্রাবিড়,পরামর্শ দিয়েছিলেন কপিল দেব

২০০৮ সালে সিডনি টেস্টের প্রথম ইনিংসে ভারতীয় বোলারদের দাপটে কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল অস্ট্রেলিয়া। সেই সময় ১৩৫ রানে ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার। কোণওমতে দলকে সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যাওয়ার লড়াই চালাচ্ছিলেন অ্যান্ড্রপ সাইমন্ডস ও ব্র্যাড হগ। সেই সময় সাইমন্ডসের অবধারিত আউট দেননি বাকনার। যার ফলস্বরূপ ম্যাচে সেঞ্চুরি করেন সাইমন্ডস। অপরদিকে ম্যাচে পঞ্চম দিনে দ্রাবিড় ও সৌরভের পার্টনারশিপ যখন দলকে জয়ের দোরগোড়ায় নিয়ে যাচ্ছিল তখন রাহুল দ্রাবিড়কে ভুল আউট দেন বাকনার। যার ফলে জেতা ম্যাচ হারতে হয়েছিল ভারতকে।

আরও পড়ুনঃবিসিসিআইয়ে হঠাৎ পদত্যাগের হিড়িক, রাহুল জোহরির পর ইস্তফা দিলেন সাবা করিম

আরও পড়ুনঃএফ.এ কাপ সেমিতে অঘটন, ম্যান সিটি-কে হারিয়ে ফাইনালে আর্সেনাল

এক সাক্ষাৎকারে স্টিভ বাকনার জানিয়েছেন,'২০০৮ সালের সিডনি টেস্টে আমি দুটো ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছিলাম। প্রথম ভুলটা করেছিলাম তখন ভারত সত্যি ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ করছে। আমার ভুলে এক অজি ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করেছিল। আর দ্বিতীয় ভুলটা করেছিলাম ম্যাচের পঞ্চম দিনে। আর তার জন্য ভারতকে ম্যাচ হারতে হয়েছিল।'  দুটো সিদ্ধান্তের জন্য এখনও আক্ষেপ করেন বাকনার। তিনি বলছেন,'আমিই কি প্রথম আম্পায়ার যে টেস্টে দুটো ভুল সিদ্ধান্ত দিয়েছিলাম? ওই দুটো আউটের সিদ্ধান্ত এখনও আমাকে দুঃখ দেয়।' এই প্রথম নয়, এর আগেও সচিন তেন্ডুলকরকেও দুবার ভুল আউট  দেওয়ার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছিলেন স্টিভ বাকনার।