বিসিসিআইয়ের সিইও রাহুল জোহরির ইস্তফার এক সপ্তাহের মধ্যেই পদত্যাগ করলেন আরও এক বিসিসিআই কর্তা। বোর্ডের জেনারেল ম্যানেজার পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন প্রাক্তন ক্রিকেটার সাবা করিম। ২০১৭-র ডিসেম্বর মাস থেকে তিনি এই পদের দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন। বোর্ডের তরফে অবশ্য এখনও এই নিয়ে কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি। রবিবার সাবা করিম ইস্তফা দিয়েছেন বলে খবর। যদিও এখনও সরকারি ভাবে কিছু ঘোষণা করেননি সাবা করিম। বোর্ডের বর্তমান প্রশাসক কমিটির সঙ্গে সংঘাতের জেরেই কি ইস্তফা দিলেনে সাবা করিম। এই বিষয়ে বোর্ডের অন্দরেই চলচে জোর জল্পনা।

আরও পড়ুনঃক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছে সম্ভাবনা, আইপিএলের প্রস্তুতি শুরু করে দিল ফ্র্যাঞ্চাইজি দলগুলি

কিছুদিন আগেই বিসিসিআইয়ের সিইও পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন রাহুল জোহরি। তার বিরুদ্ধে হ্যাশ ট্যাগ মি ট্যু অভিযোগ করেচিলেন এক মহিলা। তারপর থেকেই বোর্ডে তার অবস্থা টালমাটাল ছিল। । গত বছর ২৭ ডিসেম্বর ইস্তফা জমা দিয়েছিলেন রাহুল জোহরি। সেই সময় তাঁর ইস্তফা গ্রহণ করেনি বোর্ড। তবে এতদিন পর হঠাত্ করে কেন ইস্তফা গ্রহণ করা হল সেটাও জানা যায়নি। তার পরিবর্তে বিসিসিআই অন্তবর্তীকালীন সিইও হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছে আইপিএলের দায়িত্বে থাকা সিইও হেমাঙ্গ আমিনকে। শীঘ্রই বিসিসিআই পরবর্তী পূর্ণকালীন সিইও নিযুক্ত করবে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুনঃএক অন্য করোনা যোদ্ধার কাহিনি তুলে ধরলেন ভিভিএস লক্ষ্মণ

আরও পড়ুনঃআর ফাঁকা মাঠ নয়,আগামী সপ্তাহ থেকেই মাঠে বসে খেলা দেখবেন দর্শকরা

 দেশের জার্সিতে তিনি একটি টেস্ট ও ৩৪ট ওয়ানডে খেলেছেন। ১২০চি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলেছেন সাবা। ২২টি সেঞ্চুরি ও ৩৩টি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। ৭৩১০ রান করেছেন তিনি। খেলার মাঠে একটি দুর্ঘটনায় তাঁর চোখে মারাত্মক ক্ষতি হওয়ায় জাতীয় দলে করিমের কেরিয়ারে ইতি পড়ে। তারপর প্রশাসক হিসাবে উঠে আসেন করিম। কিন্তু কেনও হঠাৎ রাহুল জোহরির পরপরই সাবা করিমও ইস্তফা দিলেন জেনারেল ম্য়ানেজারের পদ থেকে তা নিয়ে বোর্ডের অন্দরেই চলছে জোর জল্পনা।