ভারত বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজ শুরু আগে একটা বিষয় দেখা গিয়েছিল। ইন্দোর বা ইডেন, দর্শকরা টিকিট কাটার সময় প্রথম তিনটি দিনের টিকিটের খোঁজ করে গেছেন। তাঁদের একটাই যুক্তি ছিল, দক্ষিণ আফ্রিকা যদি ভারতের সামনে চার দিন দাঁড়াতে না পারে তাহলে বাংলাদেশেও পারবে না। তার ওপর শাকিব তামিমরা নেই। দর্শকরা খুব একটা ভুল কাজ করেননি সেটা দ্বিতীয় দিনের শেষেই পরিস্কার। প্রথম দিন চার ঘন্টার মধ্যে টাইগারদের প্রথম গুটিয়ে দেওয়ার পর দ্বিতীয় দিনের শেষে রানের পাহাড়ে ভারত। শুক্রবারের খেলা শেষে ভারতের রান ৪৯৩/৬। লিড ৩৪৩ রানের।
 

 

আরও পড়ুন - প্রথম টেস্টে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে দুরন্ত ছন্দে দ্বিশতরান ময়াঙ্ক আগরওয়ালের

স্কোর বোর্ড দেখে তাই অনেকেই বলছেন ভারত বাংলাদেশের ধরা ছোঁইরে বাইরে চলে গেছে। বাংলাদেশ ব্যটিংয়ের কঙ্কালটা প্রথম দিনই পরিস্কার হয়ে গেছে। তাই তৃতীয় দিনও যদি খেলা শেষ হয়ে যায়, তাহলে অবাক হাওয়ার অন্তন কিছু থাকবে না। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রথমদিন যদি ভারতীয় পেস বোলারার দাদাগিরি করে থাকেন, তাহলে দ্বিতীয় দিনটা মায়াঙ্ক আগারওয়ালের। কেরিয়ারে এখন স্বপ্নের ফর্মে আছেন তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার পর এবার বাংলাদেশ। টেস্ট কেরিয়ারে দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরিটা করলেন কর্নাটকের ব্যাটসম্যান। 

 

আরও পড়ুন - ইন্ডোরে ব্যাটিং, ক্রিকেট অভিষেকের দিন স্মরণীয় করে রাখলেন সচিন তেন্ডুলকর

মায়াঙ্কের দুরন্ত ব্যাটিংয়ংর পাশাপাশি দুরন্ত ব্যাটিং পূজারা, রাহানে, জাদেজার। ৫৪ রান করে আউট হলেন পূজারা। শতরান মাঠে ফেলে এলেন রাহানে। ৮৬ রানে আউট হলেন তিনি। তবে হতাশ করলেন বিরাট। খাতা খোলার আগেই প্যাভেলিয়ানে ফিরলেন তিনি। রান পেলন না ঋদ্ধিমানও। শেষ বেলায় অশ্বিনের আগে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল উমেশ যাদবকে। মাঠে উপস্থিত দর্শকদের মাতিয়ে তুললেন তিনি। ১০ বলে ২৫ রান করে ক্রিজে আছেন তিনি। মেরেছেন তিনটি ছয়, একটি চার। উমেশের সঙ্গে ক্রিজে আছেন জাদেজা। তিনি ৬০ রানে অপরাজিত। তৃতীয় দিন আর কতক্ষণ ব্যাটিং করে ভারত সেটাই এখন দেখার। 

আরও পড়ুন - এএফসি বার্ষিক পুরস্কার, সেরা ফুটবলারের দৌড়ে ভারতের আশালতা