বর্তমানে নিজের কেরিয়ারের স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন কে এল রাহুল। ওয়ান ডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি সামলাচ্ছেন উইকেট কিপিংয়ের দায়িত্বও। ঋষভ পন্থ খারাপ ফর্মের কারণে দলে অনিশ্চিত হওয়ার পর থেকেই কিপিং করছেন রাহুল। কিপিং গ্লাভস হাতে যে খুব একটা সাদামাটা কিপিং করছেন কেএল রাহুল তাও নয়। অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডের মতো প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি উইকেট কিপিং করে সবাইকে চমকে দিয়েছেন লোকেশ রাহুল। টিম ম্যানেজমেন্টের সিদ্ধান্তেই এই দুই সিরিজে কিপিং করতে হয়েছিল রাহুলকে। কিন্তু তারপরও রাহুলের কিপিং নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন একাধিক প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার। সম্প্রতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে ধোনিকেই প্রথম কিপার, ব্যাটসম্যান হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন মহম্মদ কাইফ। রাহুলকে তিনি রিজার্ভ কিপার হিসেবেই ধরেছেন। একইসঙ্গে রাহুলের ব্যাটিংকেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন কাইফ।

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের জেরে টেস্ট ক্রিকেটে বন্ধ হতে পারে বলের পালিশ, মনে করেন প্যাট কামিন্স

রাহুলের কিপিং দক্ষতা প্রশংসাও কুড়িয়েছে অনেকের। কিন্তু ভারতের ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধর লোকেশ রাহুলের কিপিং দেখে মোটেও অবাক নন।  উইকেট কিপার কেএল রাহুলকে তিনি চিনতেন অনেক আগে থেকেই। রাহুলের কিপিং দক্ষতা নিয়ে প্রশংসা করার পাশাপাশি শ্রীধর জানিয়েছেন, '২০০৫ সালে আমি হায়দরাবাদের অনূর্ধ্ব ১৬ দলের কোচ ছিলাম। বিজয় মার্চেন্ট ট্রফির দক্ষিণাঞ্চলের ম্যাচে আমাদের সঙ্গে খেলা ছিল কর্নাটকের। কর্নাটকের এক তরুণ উইকেট কিপার আমাকে মুগ্ধ করেছিল। ওই ছেলেটাই রাহুল। আমি যেটা বোঝাতে চাইছি, তা হল রাহুল মোটেও পার্ট টাইম উইকেট কিপার নয়।'

আরও পড়ুনঃলকডাউনে গার্হস্থ্য হিংসা রোধে সচেতনতার বার্তা ভারতীয় ক্রিকেটার সহ বলিউড তারকাদের

আরও পড়ুনঃকরোনা মহামারীর জেরে পিছিয়ে গেল বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বের খেলা

অনূর্ধ্ব ১৬ ও ১৯ টুর্নামেন্টে কর্নাটকের হয়ে কিপিং করেছেন রাহুল। ঘরোয়া ক্রিকেটেও রাজ্য দলের হয়ে উইকেট কিপিং করতে দেখা গিয়েছে  তাঁকে। আইপিএল-এ রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর ও কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের হয়ে উইকেটের পিছনে দাঁড়ান লোকেশ। সম্প্রতি তাঁকে কিপিং করতে দেখা গেলেও পাঁচ বছর আগে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টে উইকেট কিপিং করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। এখন তিনিই জাতীয় দলের হয়ে সীমীত ওভারের ক্রিকেটে উইকেটের পিছনে দাঁড়ান।  ফলে ভারতীয় দলের ফিল্ডিং কোচের ধারনা লাগাতার সুযোগ পেলে ভবিষ্যতে পুরোপুরি প্রফেশনাল কিপার হয়ে উঠবেন কে এল রাহুল। কোনও প্রভাব পড়বে না তার ব্যাটিংয়েও। দলের ফিল্ডিং কোচ খোলাখুলি যেভাবে রাহুলের কিপিং নিয়ে সার্টিফিকেট দিয়েছে, তাতে গোটা টিম ম্যানেজমেন্টের সমর্থন রাহুলের প্রতি রয়েছে বলেই মনে করছেন ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা।