“এই মুহূর্তের পরিস্থিতি বিপজ্জনক পিচে টেস্ট ম্যাচ হওয়ার মতো। বল সিম করছে, ঘুরছেও। ব্যাটসম্যান সামান্য ভুল করলেই মুশকিল। ব্যাটসম্যানকে আবার উইকেট বাঁচিয়ে রাখার পাশাপাশি রানও করতে হবে। মাথায় রাখতে হবে মার্জিন অফ এরর খুব সামান্য। আর সেই ভাবেই জিততে হবে টেস্ট।” এই বক্তব্য বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের। দেশ তথা বিশ্ব জুড়ে যেভাবে বাড়ছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা তা নিয়ে খুবই উদ্বিগ্ন। কোনওভাবেই বাগে আনা যাচ্ছে না মারণ ভাইরাসকে।  পরিস্থিতি য়ে আরও ভয়াবহ হচ্ছে তাও বুঝতে পারছেব প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। তাই তো গোটা পরিস্থিতিতে ক্রিকেটীয় ভাষায় কঠিন উইকেটে টেস্ট ম্য়াচের সঙ্গে তুলনা করেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

আরও পড়ুনঃআইপিএল কেরিয়ারের শেষ ম্যাচটা কোন দলের হয়ে খেলতে চান,জানিয়ে দিলেন রাসেল

গোটা পরিস্থিতিতে যে আতঙ্কও গ্রাস করেছে তাও স্বীকার করেছেন সৌরভ। একটি অনুষ্ঠানে তিনি জানিয়েছেন, শুধু হতাশাই নয়, আতঙ্কও ঘিরে ধরছে সৌরভকে। তাঁর কথায়, “এত মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। কত মৃত্যু ঘটছে। এই পরিস্থিতিতে ভয়ও পাচ্ছি। আমার বাড়িতেও অনেক আসেন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য, সবজি বিক্রি করতে। আমি খুবই ভীত হয়ে পড়েছি। যত দ্রুত সম্ভব এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে চাইছি।”মৃত্যুর সংখ্যা যে ভাবে বাড়ছে, তাতে ব্যথিত ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। তিনি বলেছেন, “বর্তমান পরিস্থিতি দেখে খুব হতাশ। কত মানুষ কষ্ট পাচ্ছেন। কী ভাবে এটা থামানো যাবে, তা বুঝতে এখনও হিমসিম খাচ্ছি আমরা। বিশ্ব জুড়ে এই পরিস্থিতিতে আমি উদ্বিগ্ন। জানি না কী ভাবে, কখন আর কোথা থেকে এটা এল। এমন কিছুর জন্য আমরা কেউই প্রস্তুত ছিলাম না।”

আরও পড়ুনঃকরোনার জেরে স্থগিত হয়ে গেল সায়নীর মলোকাই চ্যানেল জয়, মন খারাপ বাংলার 'সাগরিকার'

ক্রিকেটীয় শিক্ষা এই পরিস্থিতিতে কাজে লাগাচ্ছেন বলেও জানিয়েছেন প্রাক্তন জাতীয় অধিনায়ক। সৌরভ বলেছেন, “ক্রিকেট আমাকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। খুব চাপের পরিস্থিতির মোকাবিলা করেছি জীবনে। যেখানে হয়তো একটাই বল বাকি আর রান করতেই হবে। একটা ভুল, একটা বেঠিক ফুটওয়ার্ক মানেই আর সুযোগ নেই। এই ধরনের পরিস্থিতি সব সময় সতর্ক রাখে আর বাস্তব পরিস্থিতি সম্পর্কে সচেতন করে তোলে।” তবে নিজের চরিত্রের মতই এই পরিস্থিতিতেও হাল ছাড়তে নারাজ বাংলার মহারাজ। সবই মিলে একসঙ্গে লড়লে যে করোনাকে হারানো সম্ভব তাও বলেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। তার কথায়,“এটা খুব কঠিন সময়। তবে আমরা আশা করছি যে একসঙ্গে লড়াই করে এই ম্যাচটা জিততে পারব।” 

আরও পড়ুনঃগড়াপেটায় রাজি না হওয়ায় হুমকি দিয়েছিল উমর,বিস্ফোরক অভিযোগ প্রাক্তন পাক ক্রিকেটারের

করোনা মোকাবিলায় জনসাধারণের পাশে দাঁড়াতে একাধিক উদ্যোগ নিতে দেখা গিয়েছে সৌরভকে। এক বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে হাত মিলিয়ে ৫০ লক্ষ টাকার চাল অনুদান দিয়েছেন সৌরভ। দরিদ্র ও প্রয়োজনীয় মানুষদের সাহায্যে এই চাল দেওয়া হচ্ছে। সরকারি স্কুল থেকেও বিলি হচ্ছে এই চাল। কখনও বেলুরমঠে গিয়ে করেছেন চাল বিতরণ, কখনও আবার ইসকনে প্রতিদিন দশ হাজার মানুষের খাবারের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। এসবের মধ্যেও মেনে চলেছেন লকডাউনের সমস্ত নিয়ম। ক্রিকেটীয় কার্যকলাপ বন্ধ থাকায় বাড়িতে পরিবারের সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন দাদা।