করোনা ভাউরাসের প্রকোপ থেকে সেরে উঠেছেন বিশ্বের পয়লা নম্বর টেনিস তারকা নোভাক জোকোভিচ। মারণ ভাইরাসের ছোবল থেকে রক্ষা পেয়েছেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক শাহিদ আফ্রিদিও। সেরে উঠেছেন বর্তমান পাকিস্তান দলের ১০ জন সদস্যও। কিন্তু ১৫ দিন কেটে গেলেও এখনও কোভিড ১৯ থেকে মুক্তি পেলেন না বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক তথা সাংসদ মাশরফি মোর্তাজা। সম্প্রতি ফের করোনা পরীক্ষা করা হয় মোর্তাজার। সেই রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে বলে খবর।

আরও পড়ুনঃটেনিস ব়্যাকেট হাতে সপাটে সচিনের ফোরহ্যান্ড, যা দেখে হতবাক টেনিস বিশ্বও

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের প্রথম দিন থেকে নড়াইল ২ নির্বাচনী এলাকায় ত্রাণ-সহ বিভিন্ন কার্যক্রমে ছুটে বেরিয়েছেন৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিজেই মারণ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন। বাংলাদেশের  জাতীয় দলের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন মাশরফি। গত ১৫ জুন মাশরাফির শাশুড়ি ও শ্যালিকার মেয়ের করোনা পজিটিভ হওয়ার কথা জানা গিয়েছিল৷ ২০ জুন নিজের ফেসবুক পোস্টে তাঁর করোনা আক্রান্তের কথা জানিয়েছিলেন মোর্তাজা। তারপর থেকে ঢাকার বাড়িতে আইসোলেশনে রয়েছেন। তার প্রয়োজনীয় চিকিৎসাও চলছে।

আরও পড়ুনঃভারতে নিষিদ্ধ টিকটক, অবশেষে নিজের প্রতিক্রিয়া দিলেন ডেভিড ওয়ার্নার

আরও পড়ুনঃবর্তমানে বিশ্বের সব থেকে 'সেক্সিয়েস্ট অ্যাথলিট', জানুন আলিশা স্মিডের কাহিনি

মাশরফি মোর্তাজার সর্বশেষ রিপোর্টও পজেটিভ আসার পর উদ্বেগ বাড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও মোর্তাজার অনুগামীদের মধ্যে। তবে চিন্তার কোনও বিষয় নেই বলেই জানিয়েছেন সাংসদের চিকিৎসক। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ডাক্তার দেবাশিস চৌধুরী শনিবার জানিয়েছেন, ‘আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই৷ ৮ জুলাই মাশারাফির আবার টেস্ট করা হবে৷ আশাকরি তখন ওর রিপোর্ট নেগেটিভ আসবে৷ সাধারণত বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ১৪ দিনের ব্যবধানে দ্বিতীয়বার টেস্ট করা হলে তাতে নেগেটিভ আসে৷ তবে বাধ্যতামূলক নয়, কারোর কারোর ক্ষেত্রে একটু বেশি সময় লাগতে পারে৷