ভারতীয় ভারউত্তোলন জগতে এল খুশির হাওয়া। ভারতীয় ভারউত্তোলন সংঘের সভাপতি সহদেব যাদব জানিয়েছেন, মিরাবাই চানু ও জেরেমি লালরিনুঙ্গা দুজনেই এরমধ্যেই টোকিও অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জন করেছেন, যা এই ২০২০ সালেই অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল, কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত তা হচ্ছে না। নিয়মানুযায়ী রাঙ্কিংয়ের দিক দিয়ে বিশ্বের প্রথম ৮ জন ভারউত্তোলক টোকিও অলিম্পিকের জন্য যোগ্যতা অর্জন করবে। এই মুহুর্তে বিশ্ব রাঙ্কিংয়ে মিরাবাই অষ্টম এবং জেরেমি দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। 

আরও পড়ুনঃআমার বদলে বেশি রায়নাকে দলে চাইত ধোনি, বিস্ফোরক মন্তব্য যুবরাজ সিংয়ের

সহদেব যাদব একটি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে তার এই দুই ভারউত্তোলকের যোগ্যতা নিয়ে কোনদিনই কোনরকম সন্দেহ ছিল না। তিনি একপ্রকার নিশ্চিত ছিলেন যে দুজনেই টোকিও অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জন করবেন। তার মধ্যে জেরেমির কথা তিনি আলাদা করে উল্লেখ করেছেন। জেরেমি এই মুহুর্তে রাঙ্কিংয়ে এশিয়ার মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করে রেখেছেন। জেরেমি এশিয়ার মধ্যে যে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তার থেকে অনেক বড় ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন। সহদেব যাদব জানিয়েছেন অলিম্পিকে জেরেমি নতুন বিশ্বরেকর্ড সৃষ্টি করলেও তিনি আশ্চর্য হবেন না। 

আরও পড়ুনঃলকডাউনে সক্রিয় বুকিরা,যোগাযোগ করা হচ্ছে ক্রিকেটারদের সঙ্গে,সতর্কবার্তা আইসিসির

আরও পড়ুনঃজুন থেকে দর্শকশূন্য মাঠে প্রিমিয়ার লিগ শুরু করার ভাবনা কর্তৃপক্ষের

সহদেব যাদব আরও জানিয়েছেন যে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে উঠলে তিনি ভারতীয় ভারউত্তোলকরা যাতে আরও বেশি প্রতিযোগিতায় যোগদান করতে পারেন তার ব্যবস্থা তিনি করে দেবেন। তিনি জানিয়েছেন যে তিনি আশাবাদী যে আরও কিছু ভারতীয় অলিম্পিকের যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে। বাংলার মেয়ে রাখি হালদারকে নিয়েও তিনি আশাবাদী বলে জানিয়েছেন। লম্বা সময় ধরে খেলাধুলার সাথে যুক্ত না থাকায় যে খেলোয়াড়রা বিরক্তির শিকার হবেন এই সম্ভাবনাও তিনি উড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছেন যে তাদের অনেকসময়ই চোট আঘাতের জন্য দীর্ঘদিন খেলার থেকে দূরে থাকতে হয়, ফলে এই অভিজ্ঞতা তাদের কাছে নতুন কিছু না।