বিস্ময় প্রতিভা হিসেবে টেস্ট ক্রিকেটে দুর্দান্ত শুরু করেছিলেন পৃথ্বী শ। কিন্তু তারপর থেকেই যেন তাঁর উপর শনির নজর লেগেছে। প্রথমে চোট পেয়ে ছিটকে গিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে। এবার ডোপিং-এর দায়ে আটমাসের জন্য ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হলেন তিনি। জানা গিয়েছে কাফ সিরাপের মধ্যে থাকা নিষিদ্ধ ওষুধ তিনি ভুল করে খেয়ে ফেলেছিলেন।

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি ইন্দোরে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির খেলা চলাকালীন বিসিসিআই-এর ডোপিং বিরোধী পরীক্ষার অংশ হিসেবে পৃথ্বীর মুত্রের নমুনা নেওয়া হয়েছিল। সেই নমুনা পরীক্ষা করে টেরবুটালিন পাওয়া যায়। এই পদার্থ ওয়াডার তালিকা অনুযায়ী, খেলা চলাকালীন এবং খেলা না থাকলেও নিষিদ্ধ। কিন্তু সাধারণ কাফ সিরাপের মধ্যেও এই পদার্থ দেওয়া থাকে।

গত ১৬ জুলাই জানা গিয়েছিল পৃথ্বী বিসিসিআই-এর ডোপিং বিরোধী আইনের ধারা ভেঙেছেন। তখন থেকেই কার্ষত নির্বাসনে ছিলেন তিনি। তবে আইন ভাঙার বিষয়টি মেনে নেন পৃথ্বী। বোর্ডকে তিনি জানান, শ্বাসনালীর সংক্রমণ দূর করতে কাফ সিরাপ খেয়েছিলেন তিনি। সেখান থেকেই টেরবুটালিন তাঁর দেহে প্রবেশ করেছিল। পারফরম্যান্সে উন্নতি ঘটাতে ইচ্ছাকৃত ওই কাজ করেননি তিনি।

বিসিসিআই যাবতীয় প্রমাণাদি খতিয়ে দেখে ও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে পৃথ্বীর ওই ব্যাখ্যা মেনে নিয়েছে। ইচ্ছাকৃতভাবে ওই নিষিদ্ধ পদার্থ গ্রহণ করেননি বলে তাঁর শাস্তির পরিমাণ অনেকটাই কম হয়েছে। তাঁকে আগামী আটমাসের জন্য নির্বাসিত করা হয়েছে। গত ১৬ জুলাই থেকে এই একপক্ষকাল সময় অবশ্য ওই আট মাসের থেকে বাদ যাবে। ফের এই বছরের ১৬ নভেম্বর মাঠে ফিরবেন তিনি।