২০১৯ সালে ১০ জুন। বিশ্বকাপে ভারতের অস্ট্রেলিয়া বধের পরের দিনই  ২২ গজকে বিদায় জানিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম তারকা যুবরাজ সিং। দীর্ঘদিন ধরে দল থেকে ব্রাত্য থাকা ও সর্বপরি বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়ার বেদনা থেকেই নিয়ছিলেন অবসরের সিদ্ধান্ত। বিদায় বেলায় সাংবাদিক বৈঠকে চোখের জল বাঁধ মানেনি ছয় ছক্কার নায়কের। শুধু যুবি নয়, সেদির চোখের কোণ ভিজেছিল বিশ্ব জুড়ে কোটি কোটি যুবরাজ ভক্তদের। কিন্তু দেশের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস হয়তো কিছুটা হলেও খুশির খবর নিয়ে এল যুবরাজ ভক্তদের। কারণ অবসর ভেঙে ফের ক্রিকেটের মূল স্রোতে ফিরতে পারেন পঞ্জাব দ্য পুত্তর।

আরও পড়ুনঃহারাতে হবে কোভিডকে, ঐক্যবদ্ধ হতে হবে ১৩০ কোটি মানুষকে, স্বাধীনতা দিবসে আর্জি সচিনের

যুবরাজের মাঠের ফেরার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে তার ঘরোয়া ক্রিকেটের দল পঞ্জাবের সৌজন্যে। দেশের জার্সি গায়ে দীর্ঘ দিন না খেললেও, ভারতের মাটিতে শেষবার তিনি ব্যাট হাতে মাঠে নামেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে গত বছর আইপিএলে। যদিও অবসর নেওয়ার পর দু'টি বিদেশি লিগে খেলতে নেমেছেন যুবি। গ্লোবাল টি-২০ কানাডা ও আবু ধাবি টি-১০ লিগে খেলতে দেখা গিয়েছে তারকা অল-রাউন্ডারকে। এবার যুবরাজকে রাজ্যদলের প্লেয়ার কাম মেন্টর হিসেবে দেখতে চায় পঞ্জাব ক্রিকেট সংস্থা। পিসিএর তরফে যুবিকে অবসর ভেঙে ফেরার অনুরোধ জানানো হয়েছে। যদিও তার সিদ্ধান্তের বিষয়ে এখনও কিছু জানানি প্রাক্তন ভারতীয় অলরাউন্ডার।

আরও পড়ুনঃদেশের প্রতি শ্রদ্ধা ও দেশবাসীর মঙ্গল কামনা, স্বাধীনতা দিবসে বার্তা বিরাট-রোহিত সহ ভারতীয় ক্রিকেটারদে

যুবরাজ সিংকে ক্রিকেটে ফেরার প্রস্তাব  সম্পর্কে সংবাদ মাধ্যমে স্বীকার করেছে পঞ্জাব ক্রিকেট সংস্থার। পিসিএ সচিব পুনীত বালি এই বিষয়ে জানিয়েছেন,'আমরা ৫-৬ দিন আগে যুবরাজকে প্রস্তাব দিয়েছি এবং ওর সিদ্ধান্ত জানার অপেক্ষায় রয়েছি। পঞ্জাব ক্রিকেটের পক্ষে সত্যিই খুব ভালো হবে, যদি যুবরাজ আবার মাঠে নামে এবং একই সঙ্গে তরুণ ক্রিকেটারদের গাইড করে।' অর্থাৎ ঘরোয়া মরসুমে মাঠে যুবরাজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানো ও পঞ্জাব ক্রিকেটের উন্নতির জন্যই যুবরাজের দ্বারস্থ হয়েছে পিসিএ। এই খবর প্রকাশ্যে আসার পরই যুবরাজের অবসর ভেঙে ঘরোয়া ক্রিকেটে মাঠে ফেরার অপেক্ষা করছেন যুবি ভক্তরা। তবে এখন সবকিছুই নির্ভর করছে যুবরাজ নিজে কি ভাবছেন তারউপর।

আরও পড়ুনঃপ্রকাশিত হয়েছে কোপা আমেরিকার দিনক্ষণ, দেখে নিন কবে থেকে প্রতিযোগিতায় নামবেন মেসি, নেইমাররা