করোনা আবহেই দেশ জুড়ে পালিত হচ্ছে ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস। তবে বিশ্ব মহামারী ভাইরাসের প্রকোপে এবছর স্বাধীনতা দিবস পালনের সাড়ম্বড়ে কিছুটা ঘাটতি রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধির কথা মাথায় রেখেই কোনও রকম ঝুঁকি নিতে চায়নি কেন্দ্রীয় তথা রাজ্য প্রশাসন। করোনা ভাইরাসের কারণে এইবছর লাল কেল্লায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপন হয়েছে মাত্র ৪ হাজার অতিথি নিয়ে। তাও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে। শিশুদের এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। লাল কেল্লার ভাষণেও প্রধান মন্ত্রী করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াইয়ের বার্তা দিয়েছেন। শুধু প্রধানমন্ত্রীই নন, স্বাধীনতা দিবসে দেশবাসীকে করোনার বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে লড়াইয়ের ডাক দিয়েছে কিমবদন্তী ব্যাটসম্যান সচিন তেন্ডুলকরও।

আরও পড়ুনঃনিস্প্রভ মেসি, ৮-২ ফলে বায়ার্নের কাছে লজ্জার হার বার্সার

৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়েছেন মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকর। বিগত বছরের তুলনায় এবারের স্বাধীনতা দিবসকে আলাদা বলেও বর্ণণা করেছেন তিনি। একইসঙ্গে ১৩০ কোটি দেশবাসী একসঙ্গে লড়াই করলে কোনও শক্তিই হারাতে পারবে না বলে জানিয়েছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। ট্যুইটারে তিনি লিখেছেন,'এই ১৫ই আগস্ট আলাদা। আজ আমাদের সময় সম্মিলিত হয়ে উঠে দাঁড়ানোর, এক এবং ঐক্যবদ্ধ হওয়ার, করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাদের একসঙ্গে লড়াই করার। এমন কোনও শক্তি নেই যা ১.৩ বিলিয়ন ভারতীয়কে পরাজিত করতে পারে।'

 

 

আরও পড়ুনঃপ্রকাশিত হয়েছে কোপা আমেরিকার দিনক্ষণ, দেখে নিন কবে থেকে প্রতিযোগিতায় নামবেন মেসি, নেইমাররা

আরও পড়ুনঃবার্সেলোনায় একসঙ্গে খেলতে পারেন মেসি-রোনাল্ডো, ক্রীড়া সাংবাদিকের দাবি ঘিরে চাঞ্চল্য ফুটবল দুনিয়ায়

করোনা বিরুদ্ধে লড়াইতে সবসময় সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন সচিন তেন্ডুলকর। কেন্দ্রের প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ও মহারাষ্ট্র সরকারের তহবিলে মোট ৫০ লক্ষ টাকার অনুদান দিয়েছিলেন। তাছাড়াও বিভিন্ন সময় কখনও ব্যক্তিগত উদ্যেগে কখনও আবার বিভিন্ন এলজিওর সঙ্গে হাত মিলিয়ে করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামিল হয়েছে মাস্টার ব্লাস্টার। স্বাধীনতা দিবসে সচিন তেন্ডুলকরের এই বার্তা সত্যিই করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দেশবাসীকে শক্তি প্রদান করবে।