বুধবার সকালে ও দুপুরে ভারত ও বাংলাদেশ যখন অনুশীলন করে, তখন রাজকোটের আকাশ পরিস্কার। কিন্তু হাওয়া অফিস আগে থেকেই জানিয়ে রেখেছিল মহা ঘূর্ণি ঝড়ের দাপট সহ্য করতে না হলেও বৃষ্টি হবে গুজরাতের এই শহরে। ভারত ও বাংলাদেশ দল অনুশীলন করে হোটেল ফিরে যাওয়ার পর সত্যি হল আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস। মাত্র আধ ঘন্টার তুমুল বৃষ্টিতে রাজকোটের সুন্দর ক্রিকেট স্টেডিয়ামটা যেন বদলে গেল সুইমিং পুলে। একাধিক ধাপে ঢাকা হয়েছিল পিচ। কিন্তু গোটা মাঠ ঢাকা সম্ভব হয়নি। 

 

আরও পড়ুন - নিজের বিয়ের রাতেও সঙ্গী ক্রিকেট, পাক সমর্থকের ছবি ভাইরাল করল আইসিসি

বৃহস্পতিবার সকালে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। মাঝে মাঝে রোদের দেখাও পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে , ম্যাচের দিন সন্দের দিকেও বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। বুধবারের মত বৃষ্টি হল পরিস্থিতি কোন দিকে যাবে সেটা নিয়ে সংশয় রয়েছে। মহা ঝড়ের প্রত্যক্ষ প্রভাব না পরলেও বৃষ্টির সম্ভাবনা উজ্জ্বল। 

 

আরও পড়ুন - রাজকোটে ব্যাট ছাড়াই সেঞ্চুরি করবেন রোহিত, তাই বলছে পরিসংখ্যান

সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে হেরে চাপে রয়েছে রোহিতের ভারত। রাজকোটে ম্যাচ না হলে সিরিজ জেতার আর সম্ভাবনা থাকবে না ভারতীয় দলের। কারণ শেষ ম্যাচ নাগপুরে যদি ভারত জিতেও যায় তাও সিরিজের ফল দাঁড়াবে ১-১। তবে টিম ইন্ডিয়াকে আশার কথা শুনিয়ে রাখছেন রাজকোটের গ্রাউন্ডস ম্যানরা। ম্যাচ শুরুর এক ঘন্টা আগেও যদি বৃষ্টি থেমে যায় তাহলে তাঁরা সঠিক সময়ে ম্যাচ শুরু করার ব্যবস্থা করতে পারেবন। কিন্তু যদি খেলার মাঝেই বৃষ্টি নামে তখন? তাই ভারত বাংলাদেশ সিরিজের ভাগ্য এখন আকাশের হাতে। 

আরও পড়ুন - দেশের বাইরেও খেলতে পারবে আইপিএল দলগুলি, প্রস্তাব গভর্নিং কাউন্সিলের