সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসকদের হাত থেকে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের দায়িত্ব সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়রা নেওয়ার পর থেকেই একের পর এক সংস্কারের রাস্তায় হাঁটছে ভারতীয় ক্রিকেট। দেশের মাঠে প্রথম দিন রাতের টেস্ট হচ্ছে। এবার আইপিএলেও একাধিক চমকের আশা করা যেতেই পারে। অন্তত আইপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠক থেকে তেমন ইঙ্গিত উঠে আসছে। মঙ্গলবারই উঠে এসেছে নো বল আম্পায়ারের কথা। এবার ফ্রাঞ্জাইজিদের জন্য খুশি হওয়ার প্রস্তাব উঠে এল বৈঠক থেকে। 

আরও পড়ুন - আগামী আইপিএলে আসছে ‘নো বল অম্পায়ার’, এখনই নয় পাওয়ার প্লেয়ার নিয়ম

এতদিন ভারতীয় ক্রিকেট লিগের কোনও দল বিদেশে গিয়ে কোনও ম্যাচ খেলতে পারত না। ভারতীয় ক্রিকেটারাও আইপিএল ছাড়া অন্য কোনও দেশের ক্রিকেট লিগে অংশ নিতে পারেন না। এই নিয়ম এবার কিছুটা হলেও আলগা করতে চাইছে আইপিএলের নীতি নির্ধারক কমিটি। এর আগে একাধিকবার বিভিন্ন আইপিএল দল দেশের বাইরে একাধিক প্রদর্শনী ম্যাচ খেলতে যাওয়ার আবেদেন করেছে কিন্তু সেই আবেদন নাকচ করা হয়েছে। কিন্তু এবার সেই আইন তুলে নিতে চাইছে গভর্নিং কাউন্সিল। প্রস্তাব, দেশের বাইরে কোনও টুর্নামেন্টে অংশ নিতে না দেওয়া হলেও প্রদর্শনী ম্যাচ বা প্রীতি ম্যাচে অংশ নিতে দেওয়া হোক ফ্রাঞ্চাইজিদের। এর ফলে দেশের বাইরে থাকা ভারতীয়রা নিজেদের দলকে যেমন সামনে থেকে দেখার সুযোগ পাবেন। পাশাপাশি ব্যবসাও অনেকটা বাড়িয়ে নেওয়া যাবে। 

আরও পড়ুন - একদিনের ক্রিকেটে পরিবর্তন চান সচিন, তৈরি করে দিলেন পরিকল্পনা

আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল এই প্রস্তাব পাঠিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের কাছে। চলতি মাসের শেষের দিকে বসতে চলছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের বার্ষিক সাধারণ সভা। সেই সভাতেই এই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হবে। ২০০৯ সালে দেশে লোকসভা ভোটের জন্য আইপিএল আয়োজন করা হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে। ২০১৪ সালেও ভোটের জন্য আইপিএলের প্রথম অংশ আয়োজন করা হয় আরবে। দুক্ষেত্রেই দেখে গিয়েছিল দেশের বাইরেও আইপিএল নিয়ে তুমল উন্মাদনা।  তাই এবার দলগুলিকে দেশের বাইরে যাওয়ার অনুমতি দিতে চাইছে গভর্নিং কাউন্সিল। তবে একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় যে আইপিএল হয় তাতে বেটিং একটা বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছিল। তাই দলগুলিকে বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার আগে দুর্নীতি দমনের দিকটাও দেখতে হবে বোর্ডকে। 

আরও পড়ুন - ইডেনে দিন-রাতের টেস্টে থাকছেন কি ধোনি, ফিকে হয়ে যেতে পারেন বিরাট-রোহিতরা