মৌলিককান্তি মণ্ডল,নদিয়াঃ বাঙালির অন্যতম আইকন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ৪৮ তম জন্মদিন। সৌরভ নামের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে আলাদা একটা আবেগ। করোনা ভাইরাসের মহামারীর কারণে প্রতিবছরের ন্যায় জাকজমক না থাকলেও, সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে প্রিয় দাদার জন্ম দিন পালন করছেন সৌরভ ভক্তরা। পিছিয়ে নেই শহরতলী বা জেলাও। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে পালিত হল 'মহারাজের' জন্মদিন। নদিয়ার নবদ্বীপে সচিন-সৌরভ ফ্যান ক্লাব প্রিয় তারকার জন্ম দিন পালন করল একটু অন্যরকমভেবে। কেক কেটে সেলিব্রেশন তো ছিলই, একইসঙ্গে রক্তদান শিবিরেরও আয়োজন করা হয় ফ্যান ক্লাবের পক্ষ থেকে।

আরও পড়ুনঃআজ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জন্মদিন,শুভেচ্ছার জোয়ারে ভাসছেন 'মহারাজ'

আরও পড়ুনঃরাত ১২ টায় মেয়ে সানার দেওয়া কেক কেটে জন্মদিন পালন সৌরভের,মিষ্টি বার্তা দিলেন স্ত্রী ডোনাও

বুধবার সকালে প্রথমে নবদ্বীপ সাধারণ গ্রন্থাগারে  সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ৪৮তম জন্মদিনের কেক কাটলেন শচিন সৌরভ ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। প্রিয় দাদাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছাও জানান সকলে। এরপর দৃষ্টিহীন প্রতিবন্ধী ত্রিরিশ জন ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে খাদ্য সামগ্রী বন্টন করা হয়। এছাড়া বর্তমান সময়ে করোনা পরিস্থিতির কথা ভেবে তাদের হাতে মাস্ক,হ্যান্ড স্যানিটাইজর তুলে দেন ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। সকলকে সচেতন থাকারল ও সুস্থ থাকার পরামর্শও দেন উদ্যোক্তারা। দুঃময়ে খাদ্যসামগ্রি ও অন্যান্য জিনিস পেয়ে খুশি ওই পড়ুয়ারা। আগামী দিনেও তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে সচিন-সৌরভ ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। এছাড়া করোনা আবহে রক্ত সংকটের কথা ভেবে সচিন-সৌরভ ফ্যান ক্লাবের প্রায় চল্লিশজন সদস্য রক্তদান করেন।

আরও পড়ুনঃসৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জন্মদিনে ফিরে দেখা ২২ গজে তার 'দাদাগিরি'

আরও পড়ুনঃসৌরভ গঙ্গোপাধ্য়ায়ের জন্মদিনে আবেগঘন শুভেচ্ছা বার্তা সচিন তেন্ডুলকরের

সৌরভ ভক্তদের মনোরঞ্জনের জন্যও দিনভর একাধিক উদ্যোগ নেওয়া হয়। সকাল থেকে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের লর্ডসের মাঠে সেই জার্সি ওড়ানোর স্মৃতি সহ বিভিন্ন স্মরণীয় ঘটনা তুলে ধরে ফ্যান ক্লাবের সদস্যরা। সৌরভ ও শচিনের বিভিন্ন ছবি দিয়ে সাজানো হয় এলাকা।  বড় বড় এলইডি টিভির মাধ্যমে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের খেলার মাঠের স্মরণীয় ঘটনা তুলে ধরা হয়। একইসঙ্গে আগামী দিনেও সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের আসুক একের পর এক সাফল্য সেই কামনা করা হয। সকল সৌরভ ভক্তদের বক্তব্য একটাই বছরের পর বছর এভাবেই চলত থাকুক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দাদাগিরি।