ক্রিকেটাররের চরিত্রে অভিনয় করতে হলে ক্রিকেটের স্বাভাবিক ব্যাকারনগত দিকগুলি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল হওয়া প্রয়োজন। ব্য়ক্তিগত জীবনে ক্রিকেট খেলার কারণেই ধোনির মত ক্রিকেটারের চরিত্রে অভিনয় করতে একটু সুবিধা হয়েছিল। 'এম এস ধোনি, দি আনটোল্ড স্টোরি' সিনেমার শুটিং চলাকালীন ও শুটিং পরবর্তী সময়ে এই কথাগুলি একাধিকবার বলতেন সুশান্ত সিং রাজপুত। কলকাতায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেও একই কথা বলেছিলেন তিনি। ক্রিকেট প্রতি তার নিখাদ প্রেমই হয়তো রিল লাইফে পুরোপুরি ধোনি হয়ে উঠতে সাহায্য করেছিল। বাস্তবের ও পর্দার ধোনি অবিকল এক হওয়ার কারণেই বক্স অফিসেও সাফল্য পেয়েছিল নীরজ পাণ্ডের ছবি। বড় পর্দায় যেমন ধোনির জীবনের অজানা কাহিনী তুলে ধরা হয়েছিল,তেমনই এই কথাও হয়তো অনেকরই অজানা সুশান্ত সিং রাজপুতের ব্যাটিং দেখে চমকে গিয়েছিলেন খোদ সচিন তেন্ডুলকরও। সেই তথ্যই সকলের সামনে তুলে ধরলেন প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক কিরণ মোরে।

আরও পড়ুনঃসুশান্তের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ মহেন্দ্র সিং ধোনি

ব্যক্তিগত জীবনে ক্রিকেট খেলার সৌজন্যে ব্যাটিংটা বেশ ভালই করতেন সুশান্ত। কিন্তু ধোনির চরিত্রে অভিনয় করার জন্য সুশান্তকে উইকেট কিপিং শেখানোর দায়িত্ব পরেছিল কিরণ মোরের উপর। পরিচালক নীরজ পান্ডে ও প্রযোজক অরুণ পান্ডের অনুরোধে অভিনেতাকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন মোরে। সুশান্তের মৃত্যুর খবর পেয়ে ভেঙে পড়েন কিরণ মোরেও। শোক প্রকাশের পাশাপাশি স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে কিরণ  মোরে জানালেন, প্রশিক্ষণ চলাকালীন একদিন প্রয়াত অভিনেতার ব্যাটিং দেখে চমকে গিয়েছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার সচিন তেন্ডুলকর। মোরে বলেন, 'বিকেসি বান্দ্রার ট্রেনিং গ্রাউন্ডে সুশান্ত তখন হেলিকপ্টার শট প্র্যাকটিস করছিল। সেই সময় সচিন মাঠে আসে। গ্যালারি থেকে সুশান্তের ব্যাটিং দেখছিল সচিন। পরে আমি যখন ওর কাছে যাই, আমাকে জিজ্ঞাসা করে ছেলেটা কে? এত ভালো ব্যাট করছে। আমি যখন বলি ওটা অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত, ধোনির বায়োপিকের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে, শুনে রীতিমতো চমকে যায় সচিন। বলে, ও চাইলে পেশাদার ক্রিকেট খেলতে পারে। অসাধারণ ব্যাট করছে।'

আরও পড়ুনঃসৌরভের বায়োপিকে অভিনয় করার স্বপ্ন ছিল সুশান্ত সিং রাজপুতের

এছাড়াও কিরণ মোরে সেই সময় সুশান্তের অনুশীলন সম্পর্কে বলতে গিয়ে জানিয়েছেন,'প্রথম দিন অনুশীলনে তিনজন সহযোগীকে নিয়ে এসেছিলেন সুশান্ত। অভিনেতাকে ডেকে তিনি বলেন পরের দিন থেকে নিজের কিট ব্যাগ নিয়ে একা মাঠে আসতে। কেননা ক্রিকেটারের চরিত্রে অভিনয় করতে হলে ক্রিকেটারদের মতো আচরণ শিখতে হবে। সুশান্ত সিং বাধ্য ছাত্রের মতো পরের দিন থেকে নিজের কিট ব্যাগ নিয়ে মাঠে ঢুকতেন।'১৩ মাস ধরে ধরে কিরণ মোরের সঙ্গে থেকে উইকেট কিপিংয় শিখেছিলেন সুশান্ত। প্রতিদিন ৪ থেকে ৫ ঘণ্টা অনুশীলন করতেন সুশান্ত। ধোনির হেলিকপ্টার শট প্রতিদিন অনুশীলন করেছেন কয়েকশো বার। সবকিছুই পর্দায় সুশান্তকে বাস্তবের ধোনি বানিয়েছিল।

আরও পড়ুনঃবড় পর্দার ধোনিকে অসম্পূর্ণ রেখেই চলে গেলেন সুশান্ত

যেই সুশান্তের ব্যটিং দেখে একদিক চমকে গিয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন মাস্টার ব্লাস্টার। সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনেতার মৃত্যুতে সোকবার্তা দেন সচিন। নিজের ট্যুইটারে অ্যাকাউন্টে সচিন লেখেন, সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর কথা শুনে হতবাক ও দুঃখিত। মেনে নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে। এমন একজন তরুণ ও প্রতিভাবান অভিনেতা। তার পরিবার ও বন্ধুদের প্রতি আমার সমবেদনা রইল। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।'