ভারতীয় তথা বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম বিধ্বংসী ওপেনার ছিলেন প্রাক্তন ভারতীয় তারকা ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেওয়াগ। বিশেষ করে টেস্ট ক্রিকেটে ওপেনিংয়ের সংজ্ঞাটাই পাল্টে দিয়েছিলেন তিনি। নিজের মত করে সেই সংজ্ঞা লিখেছিলেন বীরু। টেস্টে একমাত্র ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে দুটি ট্রিপল সেঞ্চুরির মালিক সেওয়াগ। তার মধ্যে একটি করেছিলেন ২০০৪ সালে পাকিস্তানে বিরুদ্ধে মূলতানে। সেদিন একাই সেওয়াগ পাকিস্তানি বোলারদের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়ছিলেন। কিন্তু সেওয়াগের সেই ইনিংস সম্পর্কে বলতে গিয়ে এবার অদ্ভুত মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন তারকা পেসার সাকলিন মুস্তাক।

আরও পড়ুনঃঅ্যাসেজের সমান ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজের উত্তেজনা, মন্তব্য স্টিভ ওয়ার

এক সাক্ষাৎকারে সেওয়াগের পাকিস্তানের বিরুদ্ধে করা ট্রিব সেঞ্চুরি নিয়ে বলতে গিয়ে সাকলিন মুস্তাক বলেন,' ওটা ছিল প্রথম দিনের উইকেট। প্রথম ইনিংস সেওবাগের ওপর তেমন কোনো চাপ ছিল না। আর আমাদের দলের অন্যতম পেসার শোয়েব আখতার চোটে আক্রান্ত ছিল। আমার মনে হয় ওই দিন সবকিছু সেহবাগের পক্ষে ছিল। একে তো পাটা উইকেট। তার ওপর পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতিও ছিল ওর পক্ষে। আমাদেরও খুব একটা ভালো প্রস্তুতি ছিল না। তাছাড়া সেহবাগের বাবা-মা ভাল কর্মের সুফল সেদিন ও ভোগ করেছিল। বা হয়তো ওরই কোনো ভালো কাজ ছিল। তাই ওরকম একটা ট্রিপল সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে ওরকম ট্রিপল সেঞ্চুরি করতে পারলে আলাদা ব্যাপার ছিল। কিন্তু ও করেছিল প্রথম ইনিংসে। তবে আমি বলছি না সেওয়াগ খারাপ ব্যাটসম্যান। ও গ্রেট।'

আরও পড়ুনঃফের 'দাদাগিরি',তিন মাস সময় পেলে এখনও দেশের হয়ে টেস্টে রান করার ক্ষমতা রাখি, বললেন সৌরভ

আরও পড়ুনঃএবার করোনা ভাইরাসের আক্রান্ত রাজ্যের মন্ত্রী তথা প্রাক্তন ক্রিকেটার লক্ষ্মীরতন শুক্লার স্ত্রী

একইসঙ্গে সেওয়াগের করা ৩০৯ রানের মূলতানের ইনিংসের থেকে ১৯৯৯ সালে চেন্নাইতে করা সচিনের ১৩৬ রানের ইনিংসকে এগিয়ে রেখেছেন সাকলিন মুস্তাক। তার কথায়, ১৯৯৯ সালের সেই চেন্নাই টেস্টে টানটান উত্তেজনার মধ্যে ১২ রানে জিতেছিল পাকিস্তান। সেই নাটকীয়তার মধ্যে সচিনের ইনিংস এসেছিল বলেই তা বেশি মূল্যবান বলে মনে করছেন পাক অফস্পিনার। সাকলিন বলেছেন,'চেন্নাই টেস্টে ভারতের দ্বিতীয় ইনিংসে সচিনের ইনিংসকে সহবাগের ত্রিশতরানের চেয়ে এগিয়ে রাখছি। কারণ, আমরা সে বার পুরো প্রস্তুতি নিয়ে ভারতে গিয়েছিলাম। আর সেই ম্যাচে রীতিমতো লড়াই চলেছিল। যা যুদ্ধের মতোই। বাস্তব হল, সচিনের সেই ইনিংস এসেছিল পিঠে ব্যথা নিয়ে।' কিন্তু সেওয়াগের ইনিংসকে যেভাবে সাকলিন তার মা-বাবার ভাল কর্মের সুফল বলেছেন, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। একইসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই বলেছেন, সচিন, সেওয়াগ দুজনের ইনিংসই গ্রেট। যেহেতু ১৯৯৯- তে পাকিস্তান জিতেছিল আর মূলতানে ভারত জিতেছিল সেই কারণেই চেন্নাই টেস্টকে এগিয়ে রাখলেন?