২২ নভেম্বর থেকে ইডেনে দেশের প্রথম ডে নাইট টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। সেই ম্যাচ আয়োজন নিয়ে একদিকে যেমন তুমুল ব্যস্ততা তেমনই  একটা চাপা টেনশনও আছে। দর্শকদের কৌতুলের অন্ত নেই। এর মাঝেই বিরাট- রোহিতদের গোলাপী বল খেলার টিপস দিলেন সচিন তেন্ডুলকর। সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে দেওয়া এক ইন্টারভিউতে সচিন বলেছেন, ‘বিভিন্ন অবস্থায় থাকা গোলাপী বলে নেটে অনুশীলন করতে হবে। একটা নতুন বল, একটা ২০ ওভার পুরোন বল, একটা ৫০ ওভার পুরোন বল ও একটা ৮০ ওভার পুরোন বল। গোলাপী বল বিভিন্ন অবস্থায় কী ভাবে আচরণ করছে সেটা ভাল করে নজর রাখতে হবে, আর সেই অনুযায়ী নিজেদের পরিকল্পনা ঠিক করতে হবে।’ মাস্টার ব্লাস্টারের মাস্টার টিপস নিশ্চিয় কাজে লাগাবেন বিরাটরা। 

আরও পড়ুন - ভারত-বাংলাদেশ দিন রাতের টেস্ট, ৭২টি গোলাপী বলের অর্ডার দিল বিসিসিআই

ভারতে দিন রাতের টেস্ট আয়োজনকে সম্পুর্ণ সমর্থন করছেন সচিন। কিন্তু একটা চিন্তা রয়েছে লিটিল মাস্টারের। সেটা অবশ্যই ‘শিশির।’ বছরের যে সময় ইডেনে ম্যাচ হচ্ছে, তখন মাঠে শিশির পরবেই। আর সেই সমস্যা কি ভাবে মোকাবিলা করতে পারা যায় সেটার দিকেই আয়োজকদের নজর রাখতে বলছেন সচিন। তাঁর মতে শিশির যদি বল ভিজিয়ে দেয়, তাহলে সেটা পেস ও স্পিন দুই ধরনের বোলারের জন্যই খারাপ। আর যদি শিশির ফ্যাক্টরকে বাগে আনা যায় তাহলে অসাধারণ একটি ম্যাচ দেখার আশা করছেন সচিন। 

আরও পড়ুন - ইডেনে প্রথম দিন রাতের টেস্ট, সমস্যা তৈরি করতে পারে ‘শিশির’

দলীপ ট্রফি বা ঘরোয়া ক্রিকেট। ভারতীয় দলের একাধিক ক্রিকেটারের গোলাপী বলে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে। সেই অভিজ্ঞতাও দলের সবার শোনা উচিত বলেই মনে করছেন সচিন। একই সঙ্গে গোলাপী বলে প্রথম ম্যাচে ভারতীয় দলের উইকেট কিপার ঋদ্ধিমান সাহার ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন সচিন। মাস্টার ব্লাস্টেরের মতে ঋদ্ধিকেই বলতে হবে পিচের কোন অংশ বল কি ভাবে আচরণ করছে। সেই মত বোলারদের গাইড করার দায়িত্ব উইকেট কিপারের। 

আরও পড়ুন - দিল্লিতে ম্যাচ হবে নির্দিষ্ট সূচি মেনেই, বলছেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ