বুধবার রাতে ভারতে পৌছে গেছে বাংলাদেশে দল। আর বুধবারই দিল্লি সরকার দূষণ নিয়ে নয়া নির্দেশিকা জারি করেছে। বৃহস্পতিবার দিল্লির উপ- মুখ্যমন্ত্রী মণীশ শিশোদিয়া জানিয়েছেন বৃহস্পতিবার থেকে সব স্কুলের বাচ্চাদের ক্লাস রুমের বাইরে রাখা যাবে না। অবিভাবক দের এনুরোধ করা হয়েছে বাচ্চাদের যেম মাস্ক পরিয়ে স্কুলে পাঠানো হয়। প্রয়োজনে গত বছরের মত এবারও স্কুল বন্ধ করতে পারে দিল্লি সরকার। আর এই পরিস্থিতিতে দিল্লিতে ভারত বাংলাদেশ ম্যাচ নিয়ে জটিলতা বেড়েই চলেছে। 

আরও পড়ুন - সৌরভ রাহুল বৈঠকে উঠে এল এনসিএর নয়া পরিকল্পনার হদিশ

যদিও বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়েছেন, নির্দিষ্ট সূচি মেনেই কোটালায় হবে ভারত বাংলাদেশ টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচ। বোর্ড ম্যাচ নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করলেও দিল্লির আকাশ যে ক্রমশ অন্ধকার হয়ে চলেছে। বুধবার এয়ার কোয়ালিটি ইন্ডেক্স জানিয়েছে দিল্লির অবস্থা খুব করুণ। বর্তমানে বায়ু দূষণের মাত্রা ৪০১ থেকে ৫০০’র মধ্যে। আর এই মাত্র আর একটু খারাপ হলেই সেটাকে ইমারজেন্সির মধ্যে গন্য করা হবে। এই অবস্থায় রবিবার দিল্লিতে ভারত বাংলাদেশ টি-২০ ম্যাচ। দিল্লির আকাশের মতই ম্যাচ নিয়েও তাই ধোঁয়াশা কাটছে না। 

আরও পড়ুন - ভারত-বাংলাদেশ দিন রাতের টেস্ট, ৭২টি গোলাপী বলের অর্ডার দিল বিসিসিআই

ডিডিসিএ’র আশা ম্যাচ সন্ধের দিকে হওয়ায় তেমন কোনও সমস্যা হবে না। কিন্তু বাস্তবটা এতটাই সহজ। যত দিন এগোচ্ছে ততই খারাপ হচ্ছে পরিস্থিতি। ক্রিকেট মহলের মনে পরে যাচ্ছে ২০১৭ সালে ভারত-শ্রীলঙ্কা টেস্ট ম্যাচের কথা। সেবার মুখে মাস্ক পরে মাঠে নেমেছিলেন লঙ্কান ক্রিকেটারা। তাতেও সমস্যা হওয়ায় মাঠে থেকেই উঠে যান তাঁরা। এবারও তেমন কিছু যদি হয় তাহলে মুখ পুড়বে ভারতীয় ক্রিকেটের। প্রাক্তন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর বুধবারই বলেছিলেন দিল্লির বায়ু দূষণ ক্রিকেট ম্যাচ অয়োজনের থেকেও অনেক বড় বিষয়। দিল্লি বিভিন্ন এনজিও ম্যাচ সরিয়ে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছেল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের কাছে।  কিন্তু সেই পথে হাঁটতে চাইছেন না সৌরভরা। এখন দেখার পরিস্থিতি কোন দিকে গড়ায়। 

আরও পড়ুন - ইডেনে প্রথম দিন রাতের টেস্ট, সমস্যা তৈরি করতে পারে ‘শিশির’