অধিনায়কত্ব যাবে সেই নিয়ে আগেই কিছুটা আভাস পেয়েছিলেন পাকিস্তান দলের ক্রিকেটার সরফরাজ আহমেদ। নিজের খারাপ পারফরম্যান্সের পাশাপাশি পাকিস্তান দলকেও ছন্দহীন মনে হচ্ছিল কিছু মাস ধরেই। জ্বলন্ত উদাহরণ হল বিশ্বকাপে পাকিস্তানের পারফরম্যান্স। আর সেই সব জল্পনার অবসান ঘটলো শুক্রবার। পাকিস্তান দলের অধিনায়কের পদ থেকে এবার সরিয়ে দেওয়া হল সরফরাজ আহমেদকে। সরফরাজকে  সরানো নিয়ে বেশ কিছুদিন টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকরা ভাবলেও, সেটা নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারছিলেন না বোর্ড কর্তারা। তবে অবশেষে দলের কোচ ও নির্বাচক পরিবর্তন হওয়ার পর সরাসরি আক্রমণ করা হল সরফরাজকে। টেস্ট ক্রিকেট ও টি২০ আন্তর্জাতিক ম্যাচের অধিনায়কত্ব থেকে সরানো হয়েছে সরফরাজকে।

আরও পড়ুন, ধোনির দেখানো পথেই অধিনায়ক কোহলি বলছেন ব্রায়ান লারা

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে এই ঘোষণার পর সরফরাজ বলেন, 'পাকিস্তানের হয়ে অধিনায়কত্ব করাটা আমার কাছে গর্বের বিষয় ছিল। আমি আমার সতীর্থ খেলোয়াড়, কোচ ও নির্বাচকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। পাশাপাশি বাবর আজম, আজহার আলিদের আমার অনেক শুভেচ্ছা। আশা করি তাঁরা পাকিস্তান দলকে আরও ওপরে নিয়ে যাবে। সেই আশা রাখি।' পাকিস্তান অধিনায়কের পদ থেকে সরফরাজকে সরিয়ে দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে পাকিস্তানের নয়া অধিনায়ক হয়েছেন আজহার আলি। একই সঙ্গে টি২০ ফরম্যাটে অধিনায়ক হিসাবে বেছে নওয়া হয়েছে বাবর আজমকে।

আরও পড়ুন, রবি শাস্ত্রী নিয়ে প্রশ্ন উঠতেই সৌরভের কৌতুক মেশানো জবাব, ভাইরাল সেই উক্তি

বিশ্বকাপের ব্যর্থতার আগে থেকেই দল হিসাবে সরফরাজের অধিনায়কত্বে খারাপ পারফর্ম করতে দেখা গিয়েছিল পাকিস্তান দলকে। একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে নিজেদের ঘরের মাঠেও সেভাবে দলকে চালনা করতে দেখা যায়নি সরফরাজকে। এমনকি বিশ্বকাপে তাঁর সমলোচনায় মেতেছিল পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটাররাও। ইতিমধ্যেই দলের সব থেকে আনফিট ক্রিকেটার হিসাবে ধরা হয়েছে তাঁকে। এবার সেই কারণে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল সরফরাজকে। আগামী দিনে কিছুদিনের মধ্যেই নিজেকে প্রমাণ না করতে পারলে পাকিস্তান দল থেকেও বাদ পরতে দেখা যেতে পারে সরফরাজকে।