করোনা মকোবিলায় ভারত পাক সিরিজ থেকে আইপিএল ও এশিয়া কাপের আয়োজন। একাধিক বিষয়ে ভারতের বিরুদ্ধে সুর চড়াচ্ছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান এহসান মানি। আইপিএলের জন্য কোনও মতেই এশিয়া কাপ বাতিল মানবেন না বলে পরিষ্কার জানিয়েও দিয়েছিলেন পিসিবি চেয়ারম্যান। করোনার কারণে পাকিস্তান বোর্ডের আর্থিক অবস্থা খারাপ হলেও, তাতে ভারতের কোনও সাহাযেযোর দরকার নেই বলেও সুড় চড়িয়েছিলেন এহসান মানি। এবার সরাসরি ভারতকে খোঁচা দিলেন প্রাক্তন পাকি অধিনায়ক তথা দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছ থেকে। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

আরও পড়ুনঃসচিনের একশো সেঞ্চুরির রেকর্ড ভাঙতে পারেন কোহলি,মন্তব্য ব্রেট লি-র

রাজনীতির ময়দান থেকে খেলার মাঠ সাম্প্রতিক কালে বারবার পাকিস্তানকে মাত দিয়েছে ভারত। মাঠের লড়াইয়ে হার যে অনিবার্য তা হয়তো বুঝেই গিয়েছেন ইমরান খান। তাই হয়তো বাক যুদ্ধকেই হাতিয়ার করেছেন তিনি।  ভারতীয় দলকে ইমরান খানের খোঁচা, তিনি অধিনায়ক থাকাকালীন এতবার হারিয়েছেন যে, তাঁর নিজেরই নাকি খারাপ লাগত। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,”আমার ভারতের জন্য খারাপ লাগত। এতবার ওদের হারিয়েছি। ওরা সবসময় চাপে থাকত। সেই টসের সময় থেকেই ওদের অধিনায়ক প্রচন্ড চাপে থাকত। আমি ওর দিকে তাকাতেই বুঝতে পারতাম খুব ভয় পেয়ে আছে। সেসময় ভারত আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বীই ছিল না।”

আরও পড়ুনঃধর্ম প্রতিষ্ঠানগুলির এই সময়ে দেশকে আর্থিক সাহায্য করা উচিত

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাস পুরোপুরি নির্মূল হলেই ফের ক্রিকেট শুরু করা উচিৎ, মন্তব্য যুবরাজের

দুই দেশের মধ্যে এখনও পর্যন্ত ক্রিকেটের তিনটি ফরম্যাট মিলিয়ে খেলা হয়েছে ১৯৯টি ম্যাচ। এর মধ্যে ভারত জিতেছে ৭০টি। পাকিস্তান জিতেছে ৮৬টি। মোট ৫৯টি টেস্টের মধ্যে ভারত জিতেছে ৯টি। পাকিস্তান ১২টি। ১৩২টি ওয়ানডে ম্যাচের মধ্যে ভারতের দখলে গিয়েছে ৫৫টি। পাকিস্তান জিতেছে ৭৩টি। টি-টোয়েন্টিতে অবশ্য পাকিস্তানের থেকে অনেকটা এগিয়ে ভারত। আটটি ম্যাচের মধ্যে ভারতই জিতেছে ৬টি। পাকিস্তান মাত্র একটি। সার্বিক পরিসংখ্যানে ভারতের থেকে খানিকটা এগিয়ে পাকিস্তান। তবে আইসিসির টুর্নামেন্টগুলিতে যেমন পাকিস্তানের থেকে অনেক এগিয়ে ভারত। তবে কপিল দেব, সচিন তেন্ডুলকর থেকে বিরাট কোহলি কেউই কোনওদিনই বিনা লড়াইয়ে জমি ছাড়েনি।  তাই বিশেষজ্ঞদের মতে, ইমরানের কটাক্ষ শুধু মাত্র ভারতকে খোঁচা দেওয়ার জন্য।