প্রবল ঘূর্ণিঝড় আমফান লণ্ডভন্ড করে দিয়েছে পশ্চিম বাংলার একাধিক জেলা। বিশেষ করে দুই ২৪ পরগনা ও হাওড়া,হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুর সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত। ঝড়ের তাণ্ডবে ভিটেমাটি হারিয়ে গৃহহীন হয়েছেন অগুনতি মানুষ। দুবেলা অন্নের সংস্থানও করতে পারছেন না অনেকেই। সুন্দরবনে একাধিক জায়গায় নদীবাঁধ ভেঙে জলমগ্ন একাধিক গ্রাম। ঝড়ের তাণ্ডবে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে শহর কলকাতারও। আমফান বিধ্বস্ত এলাকায় শুধু প্রশাসন নয়, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে আসছেন সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিত্বরা। এবার আমফান মোকাবিলায় ফের ময়দানে নেমে পড়লেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গোপাধ্যায়। ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়ে তুলে দিলেন প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি।

আরও পড়ুনঃশতবর্ষে অভিনব উদ্যোগ ইষ্টবেঙ্গলের,সমর্থকদের জন্য স্য়ানিটাইজার আনছে ক্লাব

একটি বেসরকারি মোবাইল সংস্থার সঙ্গে  যৌথ উদ্যোগে আমফান ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশন। কলকাতাসহ  দুই ২৪ পরগণা, মেদিনীপুর আর সুন্দরবন এলাকার বহু ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। এই কর্মকাণ্ডের সূচনা করেন খোদ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বিভিন্ন এলাকায় চলে এই ত্রাণ সামগ্রি দান। লাইন দিয়ে মানুষ সংগ্রহ করেন ত্রাণ। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সেই ছবিও শেয়ার করেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। ছবি শেয়ার করে সৌরভ লেখেন,কিছু ইনিংস সত্যি সকলের পরীক্ষা নেয়। যা থেকে বেরিয়ে আসতে কঠিন লড়াই করতে হয়। দিন কয়েক আগে ভয়ঙ্কর ঘুর্ণিঝড়ের আঘাত করেছিল বাংলাকে। সর্বনাশ দেখতে পেয়েছিলাম আমরা। ঝড়ের ধ্বংস আমাদের সকলকে নাড়িয়ে দিয়েছিল। এই পরিস্থিতে ১০ হাজার মানুষের হাতে প্রয়োজনীয় জিনিস তুলে দিলাম। আগামী দিনেও সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

 

 

আরও পড়ুনঃআইপিএলের সম্ভাব্য দিনক্ষণ জানিয়ে দিলেন ব্রিজেশ প্যাটেল

আরও পড়ুনঃবর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অভিনব উদ্যোগ ইপিএলের

এর আগেও করোনা মোকাবিলায় এগিয়ে এসেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ৫০ লক্ষ টাকার চাল দেওয়ার ঘোষণা কেরছিলেন তিনি। বেলুর মঠে গিয়ে ২ হাজার কেজি চাল দান করেছিলেন সৌরভ। ইসকনে গিয়ে প্রতিদিন ১০ হাজার মানুষের অন্নের সংস্থান করেছিলেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা। এবার আমফান বিধ্বস্ত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ফের নিজের মানবিক রীপের পরিচয় দিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রিয় দাদা এই উদ্যোগ সাধুবাদ জানিয়েছেন সকলেই।