গত বছর থেকেই শতবর্ষের অনুষ্ঠান শুরু করেছিল ইষ্টবেঙ্গল ক্লাব। বর্ণাঢ্য ব়্যালি, নেতাজি ইন্ডোরে অনুষ্ঠান থেকে পুরোনো কিংবদন্তীদের ক্লাব তাবুতে নিয়ে আসা। সবকিছু চলছিল ঠিকঠাক। পরিকল্পনা ছিল আরও অনেক কিছুর। কিন্তু গত মরসুমটা ভাল যায়নি ইষ্টবেঙ্গল ক্লাবের। ঘরে আসেনি একটিও ট্রফি। কোয়েসের সঙ্গে বিবাদ। তারউপর করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। যার জেরে বাতিল করতে হয় একাধিক অনুষ্ঠান। তবে আগামী মরসুমে জন্য গুছিয়ে দল করা শুরু করে দিয়েছেন লাল-হলুদ কর্তারা। এরইমধ্যে শতবর্ষে  এক অভিনব সিদ্ধান্ত নিল এই শতাব্দী প্রাচীন ফুটবল ক্লাবটি। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে সমর্থকদের জন্য স্যানিটাইজার নিয়ে আসছে লাল-হলুদ। স্যানিটাইজারে থাকবে ক্লাবের শতবর্ষের লোগো।

আরও পড়ুনঃআইপিএলের সম্ভাব্য দিনক্ষণ জানিয়ে দিলেন ব্রিজেশ প্যাটেল

ঐতিহ্যশালী সব ফুটবল ক্লাবই নিজেদের অফিসিয়াল মার্চেন্ডাইজ বিক্রি করে সমর্থকদের মধ্যে। নতুন মরশুমের জার্সি, প্যান্ট, বুট থেকে শুরু করে অতীতের স্মৃতি উসকে দেওয়া কিটসও পাওয়া যায় ক্লাবের অফিসিয়াল স্টোরে। এবার এই সকল জিনিসের সঙ্গে ক্লাব থেকে সদস্য,সমর্থকরা সংগ্রহ করতে পারবে ক্লাবের শতবর্ষ উদযাপনের বিশেষ লোগো লাগানো বিশেষ স্যানিটাইজার। ন্যায্য মূল্যে তা বিক্রি করা হবে। এই স্যানিটাইজার যে দামে প্রস্তুতকারক সংস্থার কাছ থেকে কিনবে ইস্টবেঙ্গল, সমর্থকদের মধ্যে বিক্রি করা হবে সেই দামেই। অর্থাৎ, এক্ষেত্রে কোনও বাণিজ্যিক স্বার্থ থাকছে না ক্লাবের। শুধু করোনা মহামারির সংকটময় সময়ে সমর্থকদের সুরক্ষার দিকে নজর দিতেই তাদের এই প্রয়াস।

আরও পড়ুনঃ২০২২ বিশ্বকাপের স্টেডিয়াম প্রস্তুতকারী সংস্থাকে ছাঁটাই,শ্রমিকদের মাইনে না দেওয়ার অভিযোগ

আরও পড়ুনঃতবে কী এবার সত্যিই কোর্ট ছাড়বেন ফেডেরার

শুধু স্যানিটাইজার নয়, সমর্থকদের সুরক্ষার কথা ভেবে প্রায় দেড় লক্ষ মাস্কেরও অর্ডার দিয়েছে ইষ্টবেঙ্গল ক্লাব। ক্লাবের এক শীর্ষ কর্তা জানিয়েছেন, দেড় লক্ষ মাস্কের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। যা সংগ্রহ করার জন্য কোনও দাম দিতে হবে না সদস্যদের। বিনা মূল্যেই ক্লাব তাবু থেকে এই মাস্ক সংগ্রহ করা যাবে।  অবশ্য ইস্টবেঙ্গলের ফ্যানস ক্লাবগুলি ইতিমধ্যেই ক্লাবের লোগো লাগানো ফেস মাস্ক বিলি করছে জায়গায় জায়গায়। প্রিয় ক্লাবের শতবর্ষ ক্লাব কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে ইষ্টবেঙ্গলের সদস্য, সমর্থকরা।