অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর নেপোটিজম বা স্বজনপোষণ নিয়ে তোলপার গোটা দেশ। শুধু বলিউড নয়, ভারতীয় ক্রিকেটেও চলে নেপোটিজম এমন অভিযোগ করেছেন অনেকেই। এবার সেই সকল সনালোচকদের জবাব দিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার আকাশ চোপড়া। তার মতে,বলিউডে নেপোটিজম থাকতে পারে, তবে ভারতীয় ক্রিকেটে নেই। অন্তত সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেটে সকলকে দলে ঢুকতে হয় নিজের যোগ্যতা দিয়েই। এখানে পিতৃপরিচয় কারও জন্য ন্যূনতম রঞ্জি দলের দরজাও খুলে দেয় না। এককথায় ভারতীয় ক্রিকেটে স্বজনপোষণের অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়েছেন আকাশ চোপড়া।

আরও পড়ুনঃপ্রিয় দলের জন্য পণ,১৭ বছর পর চুল কাটলেন লিভারপুল সমর্থক

দেশ তথা বিশ্বের দুই কিংবদন্তী ব্যাটসম্যান সুনীল গাভাসকর ও সচিন তেন্ডুলকরদের ছেলেদের উদাহরণ দিয়ে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে কাশ চোপড়া বলেছেন,'ভারতীয় ক্রিকেটে যদি নেপোটিজম বা স্বজনপোষণ চলত, তাহলে সুনীল গাভাসকরের ছেলে রোহন গাভাস্কর তো টেস্ট ম্যাচও খেলতে পারত। কিন্তু সে রকম তো কিছু হয়নি। বাংলার হয়ে রঞ্জি ট্রফিতে ভাল খেলে তবেই জাতীয় দলে ডাক পায় রোহন। ওর নামের সঙ্গে গাভাস্কার জুড়ে থাকলেও মুম্বইয়ের রঞ্জি দলে ওর জায়গা হয়নি। বাংলার হয়ে খেলে জাতীয় দলে ঢুকতে হয়। কিন্তু টেস্ট খেলার সুযোগ পাননি। পারফর্ম না করতে পারার জন্য জাতীয় দল থেকে বাদও পড়তে হয়েছে।'

আরও পড়ুনঃকরোনা আবহেই সুখবর, শিখর ধাওয়ানের পরিবারে এল নতুন অতিথি

আরও পড়ুনঃপরিবারে একের পর এক করোনার থাবা,রাতের ঘুম কেড়েছে সৌরভের

একইসঙ্গে সচিন তেন্ডুলকরের পুত্র অর্জুন তেন্ডুলকর সম্পর্কে আকাশ চোপড়া বলেন,অর্জুন তেন্ডুলকরের কথাই ধরা যাক,'সচিনের ছেলে বলে তাকে কোনও মঞ্চ উপহার দেওয়া হয়নি। সহজে ভারতীয় দলে ঢোকাও সম্ভব হয়নি তার পক্ষে। অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্ষেত্রেও এমন কোনও অবৈধ নির্বাচন দেখা যায়নি অর্জুনকে নিয়ে। যখনই কোনও দল নির্বাচন হয়েছে, সেটা নিতান্ত পারফর্ম্যান্সের উপর ভিত্তি করেই।বাস্তবিকই ইংল্যান্ড ও ভারতীয় ক্রিকেট দলের নেটে ক্রমাগত বোলিং করার অভিজ্ঞতা থাকলেও এখনও মুম্বইয়ের হয়ে রঞ্জি খেলা হয়নি অর্জুনের। সচিন পুত্রকে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের নেটেও বোলিং করতে দেখা যায়। তবে এখনও কোনও আইপিএল দলে ঢুকে পড়তে পারেননি তিনি।' ফলে ভারতীয় ক্রিকেটে শেষ কথা পারফরমেন্সই তা বার বার বলেছেন আকাশা চোপড়া।