তাঁর ঘুমের ছবি ভাইরাল হয়েছে ২৪ ঘন্টাও হয়নি। এখনও সোশ্যাল মিডিয়া হাসির খোরাক হয়ে আছেন ভারতীয় দলের হেড কোচ রবা শাস্ত্রী। এর মাঝেই আবার ভাইরাল হলেন রবি। তবে এবার ভুমের জন্য নয়, তাঁর একটা উক্তির জন্য। রাঁচিতে ভারত দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট শেষ হওয়ার পরই একের পর এক ইন্টারভিউ পর্ব শুরু হয়। এমন সময়েই টিভির পর্দায় এলেন রবি। ধারাভাষ্যকার ও প্রাক্তন ক্রিকেটার সঞ্জয় মঞ্জেকর প্রশ্ন করেছিলেন ভারতীয় বোলিং নিয়ে। তখনই রবি বলেন, ২২ গত নিয়ে তাঁর দল ভাবে না। দেশ হোক বা দেশের বাইরে, তাঁর দলের ফোকাস থাকে শুধু প্রতিপক্ষের ২০টি উইকেটের ওপর। 

আরও পড়ুন - ভারতীয় দলের ড্রেসিংরুমে ধোনি, ফিরছেন কি জাতীয় দলে, তুঙ্গে জল্পনা


শাস্ত্রী ঠিকই বলেছেন। তাই এবার ভারতীয় ক্রিকেট মহল তাঁকে ট্রোল করছে না। বরং সাধুবাদ দিচ্ছে। একই সঙ্গে রবির কথা বলার ধরনেও ফুটে উঠেছে এক নম্বর টেস্ট টিমের দাপট। রবির কথা যে ঠিক সেটা প্রমাণ করছে ভারতীয় দল। একটা বড় সময় পর্যন্ত ভারতীয় দলকে বল হত শুধু ব্যাটিং ও স্পিন বোলিং নির্ভর। কিন্তু সামি, উমেশ, ইশান্ত, বুমরারা সেই হিসেব উল্টে দিয়েছেন। এখন ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার কাজটা শুধু স্পিনারদের উপর থাকে না। থাকে পেসারদের উপরও। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে শেষে পরিসংখ্যানও সেই কথাই বলছে। তিন টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার ৬০টি উইকেটের মধ্যে ভারতীয় স্পিনাররা নিলেন ৩২টি উইকেট, পেসারদের দখলে এল ২৬টি। 

আরও পড়ুন - রান ৫২৯, গড় ১৩২, ২টি সেঞ্চুরি একটি ডাবল সেঞ্চুরি, সিরিজ সেরা ‘ওপেনার’ রোহিত

পাশাপাশি আছে দলের তারকা ব্যাটিং। তিন টেস্টে তিনজন ব্যাটসম্যান ডবল সেঞ্চুরি করলেন। ওপেনার রোহিত ভারতীয় ব্যাটিংয়ে যোগ করলেন অন্য মাত্রা।  রাহানে গত মরসুমে খুব একটা ফর্মে না থাকলেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আবার ছন্দ ফিরে পেলেন। একই সঙ্গে উইকেটের পেছনে ঋদ্ধিমান সাহার দুরন্ত কিপিং ও মাঠ জুড়ে গোটা দলের অসাধারণ ফিল্ডিং। গোটা ভারতীয় দলের সফল্য। এই সব দেখার পর অনেকে বলতেই পারেন, শাস্ত্রীর নিশ্চিন্তে ঘুম ছাড়া আর কী বা করার থাকতে পারে? 

আরও পড়ুন - ২৪-এ মুখোমুখি বৈঠক, বিরাটের প্রস্তাবে আদৌ কি রাজি হবেন সৌরভ