টেস্টের এক নম্বর দল, সবদিক থেকে দাপট, কিন্তু সমস্যা একটা জায়গাতেই। নির্ভরযোগ্য ওপেনার নেই। গত কয়েক বছর ধরে ভারতীয় ক্রিকেট এই সমস্যাতেই ভুগে চলেছিল ভারতীয় টেস্ট দল। সমাধান বাতলে দিয়েছিলেন বোর্ড সভাপতির আসনে বসতে চলা সৌরভ। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সেই টোটকা কাজে লাগিয়ে রোহিত শর্মাকে ওপেনারের ভূমিকায় নামাল টিম ইন্ডিয়া। সৌরভের বিরু ফর্মুলা যেমন সুপার হিট হয়েছিল, তেমনই সুপার হিট হয়ে গেল রোহিত টোটকাও। ওপেনার রোহিত শুধু সফল ভাবে ওপেন করলেন তেমনটা নয়, জিতে নিলেন ম্যান অব দ্য সিরিজের পুরস্কারও। 

আরও পড়ুন - মাত্র দুই ওভারেই শেষ দক্ষিণ আফ্রিকা, ঘরের মাঠে টানা ১১ সিরিজ জয় টিম ইন্ডিয়ার

তিনটি টেস্টের, চার ইনিংসে ৫২৯ রান করেছেন হিটম্যান। তাঁর ১৩২। কিন্তু কি ভাবে এল এই সালফ্য? রাঁচি টেস্ট শেষে ম্যাচ ও সিরিজ সেরার পুরস্কার নিতে এসে রোহিত জানালেন সেই কথা। একদিনের ক্রিকেট হোক বা টেস্ট ক্রিকেট। রোহিত ইনিংসের শুরুতে তাড়াহুড়ো পছন্দ করেন না। একদিনের ক্রিকেটেও দেখা যায় প্রথম পঞ্চাশ রান করতে রোহতি অনেকটা সময় নেন। ২২ গজে জমে যাওয়ার পর শুরু হয় বোলারদের ওপর তান্ডব। টেস্টেও একই ভাবে ওপেন করলেন হিটম্যান। সাফল্যও পেলেন। প্রথম সেশনে নিজেকে সময় দিলেন। তারপর শুরু করলেন বড় শট নেওয়া। 

আরও পড়ুন - রবি শাস্ত্রীর ঘুমের দাম কত, প্রশ্নের ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়

শেহওয়াগ মিডিল অর্ডার থেকে ওপেন কেরতে এসে সফল হয়েছিলেন তবে তাঁর কৌশল ছিল অন্য। প্রথম থেকেই প্রতিপক্ষের বোলারদের ওপর ঝাঁপিয়ে পরতেন বিরু। তবে রোহিত, নিজেকে সময় দিচ্ছেন। তারপর শুরু করছেন আক্রমণ। ঘরের মাঠে সাফল্যের সঙ্গে নতুন ভূমিকায় নিজেকে মেলে ধরেছেন। আর এই দাপট সহজে হাতছাড়া করতে চাইছেন না হিটম্যান। নিজেই বলছেন, এই দুরন্ত শুরুটা তাঁকে ধরে রাখতে হবে। দক্ষিণ আফ্রিকারল পর ঘরের মাঠে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ। সেখানেও রোহিতের থেকে বড় রান আশা কর যায়। আর সেটা হলে নিউজিল্যান্ডে পরীক্ষার মুখে পরার আগে নিজেকে সম্পুর্ণ তৈরি করে রাখতে পারেবন রোহিত হিটম্যান শর্মা। 

আরও পড়ুন - বিসিসিআই সভাপতির প্রথম পদক্ষেপ, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে কথা বলতে পারেন সৌরভ