মাঠে বিরাট কোহলির আগ্রাসী স্বভাবের সঙ্গে সবাই পরিচিত। ইঁট মারলে পাটকেল যে বিরাট ফেরত দেবেই তা ভাল করে জানেন বিশ্বের তাবড় তাবড় বোলাররা। অধিনায়ক হিসেবে ধোনির মত শান্ত স্বভাবের নন ভারত অধিনায়ক। তিনি অনেক বেশি আক্রমণাত্বক। বোলারদের সঙ্গে বিবাদে জড়াতেও বেশ কয়েকবার দেখা গেছে বিরাট কোহলিকে। কিন্তু ভাল বল করলে বিরাট পাল্টা বোলারকে গালাগাল করেন।এই অভিযোগ নতুন। কিন্তু কোহলির বিরুদ্ধে এমনই গুরুতর অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের পেস বোলার আল আমিন হোসেন।

আরও পড়ুনঃলকডাউনের বাজারে ফের চমক,সি কে ভিনিথ ও রিনো অ্যান্টোকে পাকা করে ফেলল ইষ্টবেঙ্গল

বাংলাদেশেও নিজের মারণ থাবা বিস্তার করেই চলেছে মারণ করোনা ভাইরাস। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বাংলাদেশেও চলছে লকডাউন। পরিবারের সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। ব্যতিক্রম নন আল আমিন হোসেনও। সম্প্রতি একটি ফেসবুক লাইভ চ্যাটে যোগ দিয়ছিলেন বাংলাদেশি পেসার। সেখানেই তিনি বলেছেন,'অন্য ব্যাটসম্যানদের থেকে আলাদা বিরাট কোহালি। বাকিরা যখন ভাল বলকে প্রাপ্য সম্মান দেন, ভারত অধিনায়ক তখন বোলারকে উল্টে স্লেজ করেন।ডট বল করলে প্রতি বারই বিরাট কোহালি পাল্টা স্লেজিং করে বসবে। ও গালাগাল করে। আসলে বোলারকে মনস্তাত্ত্বিক চাপে ফেলার চেষ্টা করে ও। চায় মানসিক ভাবে অস্বস্তিতে ফেলতে।' আল-আমিন বলেছেন, “আমি ক্রিস গেল, শিখর ধওয়ন, রোহিত শর্মা ও অন্য গ্রেট ব্যাটসম্যানদের বল করেছি। কিন্তু কেউই এমন করে না। ভাল বল হলে ওরা সেটাকে ডিফেন্ড করে। কোনও কথা বলে না কেউ। কোহালি কিন্তু ওদের মতো নয়। ও পাল্টা স্লেজিং করে।” এর আগে বাংলাদেশের পেসার রুবেল হোসেনও একই কথা বলেছিলেন। অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে খেলার অভিজ্ঞতা থেকে তিনি বলেছিলেন, “তখন ও খুব স্লেজিং করত। জাতীয় দলের হয়ে খেলার সময় ও হয়তো একটু কমিয়েছে। আমরা সবাই জানি অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে ও কেমন ছিল।”

আরও পড়ুনঃভারতীয় ক্রীড়াবিদদের মাঠে ফেরানোর উদ্যোগ ক্রীড়া মন্ত্রকের

আরও পড়ুনঃএবার ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কালো ছায়া আফগান ক্রিকেটে, গড়াপেটায় যুক্ত থাকায় নির্বাসিত এক ক্রিকেটার

বিপক্ষ ক্রিকেটারদের সঙ্গে অতীতে অনেক বার তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়েছেন কোহালি। আর প্রতি বারই এমন ঘটনার পর আরও উদ্দীপ্ত দেখা গিয়েছে তাঁকে। ক্রিকেটমহলে প্রচলিত ধারণা যে নিজেকে অনুপ্রাণিত করতেই এমন করেন কোহালি। কিন্তু বোলারদের গালাাগাল করার বিষয়টি এখনও সকলের অজানা। বিষয়টি সকলের নজর এড়িয়ে যায় কীভাবে তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন। যদিও এই বিষয়ে এখনও কোনও মন্তব্য করেননি বিরাট কোহলি।