অনেক দিন ধরেই কথাটা বলে আসছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। টেস্টে ওপেনিং সমস্যা মেটাতে রোহিত শর্মার দিকে তাকাতে বলছিলেন মহারাজ। এবার একই কথা উঠে এল ভারতীয় দলের নির্বাচক কমিটির প্রধান এমএসকে প্রসাদের মুখ থেকেও। দলের ওপেনার কেএল রাহুলের ফর্ম যে তাঁদের কাছে একটা চিন্তার বিষয়, সেটা মেনে নিচ্ছেন নির্বাচক প্রধান। পাশাপাশি রোহিতকে ওপেনার হিসেবে ব্যবহারের কথাও উঠে আসছে প্রসাদের মুখে। ‘দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে ফেরার পর অধিনায়ক বা কোচের সঙ্গে এখনও বৈঠকে বসা হয়নি নির্বাচক কমিটির। যখন আমরা সবাই একসঙ্গে বসব তখন এই বিষয়ে নিশ্চাই কথা বলব।’  রোহিতকে ওপেনার হিসেবে ব্যবহার প্রসঙ্গে বললেন নির্বাচক কিমিটির প্রধান। 

ক্যারেবিয়ান সফরে রাহুলের ব্যাটে রানের ক্ষরা। চার ইনিংসে মাত্র ১০১ রান করেছেন ভারতীয় ওপেনার। টেস্ট ওপেনার হিসেবে তিনি দলের প্রথম পছন্দ হলেও ক্যারেবিয়ান সফরের চার ইনিংসে রাহুলের ব্যাট থেকে এসেছে যথাক্রমে ১৩, ৬, ৪৪, ৩৮ রান। টেস্টে ভারতীয় মিডিল অর্ডার নিজেদের সেরাটা দেওয়ায় দলের তেমন অসুবিধে হয়নি। কিন্তু ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে যে এই বিষয়টিকে হালকা ভাবে নেওয়ার যাবে না। বিশ্বকাপ বা সীমিত ওভারের ক্রিকেটে রাহুল ভালও ব্যাটিং করলেও টেস্টে তাঁর ব্যাট এখন খুব বেশি কথা বলছে না। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওভালে শেষ ৫০ বা তার বেশি রান এসেছিলে কর্নাটকের ব্যাটম্যানের ব্যাট থেকে। 

বিশ্বকাপের আগে অস্ট্রেলিয়া সফরে ভারতীয় টেস্ট দলের সদস্য ছিলেন রোহিত। সেখান মিডিল অর্ডারে ভালই ব্যাটিং করেছিলেন। তারপর মেয়ে জন্মানোয় দেশে ফিরে আসেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দুই টেস্টের সিরিজে দলের সঙ্গে থাকলেও প্রথম একাদশের বাইরেই থাকতে হয় টিম ইন্ডিয়ার সীমিত ওভারের সহ অধিনায়ককে। হোল্ডারের দলের বিরুদ্ধে রাহানে ফর্মে ফিরেছেন, হনুমা নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তাই মিডিল অর্ডারে আরা জায়গা নেই, এই অবস্থায় রোহিতকে সীমিত ওভারের ক্রিকেটের মত টেস্ট ক্রিকেটেও ওপেনারের ভূমিকায় দেখাতে পাওয়ার সম্ভাবনা ক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছে বলেই মনে করছে ক্রিকেট মহল।