পাকিস্তানকে বরাবরই বলা হয় পেস বোলার তৈরির কারখান। ইমরান খান, ওয়াকার ইউনিস, ওয়াসিম আক্রম, শোয়েব আখতার থেকে মহম্মদ আমির। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে বিশ্ব ক্রিকেট একাধিক পেস বোলার উপহার দিয়েছে পাক ক্রিকেট। সম্প্রতি আরও এক পাক পেসার যিনি কেরিয়ারের শুরুতেই নজর কেড়েছেন ক্রিকেট বিশ্বের তিনি নাসিম শাহ। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তার এখনও পর্যন্ট ছোট্ট কেরিয়ারে ৪টি ম্যাচে ১৩টি উইকটে নিয়ে ফেলেছেন নাসিম। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে রাওয়ালপিন্ডিতে হ্যাটট্রিক করেছিলেন নাসিম শাহ। মাত্র ১৬ বছর ৩৫৯ দিনে কনিষ্ঠতম বোলার হিসেবে এই নজির গড়েছিলেন তিনি। নাসিমের বলের গতি ও সুইং ভাল লেগেছে অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরই। এহেন নাসিম শাহ মুখিয়ে রয়েছে ভারতের বিরুদ্ধে খেলার জন্য। বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে বল করা ও নিজেকে প্রমাণ করাই তার ইচ্ছে।

আরও পড়ুনঃঅনুশীলন শুরু করল অজিরা,লকডাউনকে 'ওয়েলকাম ব্রেক' বললেন স্মিথ

লকডাউনের জেরে পাকিস্তানেও বন্ধ রয়েছে ক্রিকেট। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নাসিম শাহ জানিয়েছেন,'ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালির মুখোমুখি হওয়ার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন তিনি। তিনি কোহালিকে শ্রদ্ধা করেন, কিন্তু ভয় পান না। ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ সব সময়ে স্পেশাল। আমাকে অনেকেই বলেছেন, এই ম্যাচ এক জনকে নায়ক বানাতে পারে। তাই আমি অপেক্ষা করছি বিরাটের বিরুদ্ধে বল করার।' কিন্তু বর্তমানে দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্কের অবনতি সহ একাধিক কারণে আইসিসি ইভেন্ট ছাড়া মুখোমুখি হয় না ভারত  পাকিস্তান। তাই পাক পেসারের মতে,'এই ধরনের ম্যাচ তো সব সময়ে হয় না। খুব অল্পই হয়ে থাকে। আমি ভারতের বিরুদ্ধে খেলতে চাই ও নিজেকে প্রমাণ করতে চাই।'

আরও পড়ুনঃবল পালিশের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করা উচিৎ আইসিসির,জানালেন বুমরা

আরও পড়ুনঃকরোনা পরবর্তী সময়ে ক্রিকেটের পরিবর্তন নিয়ে উদ্বিগ্ন বিরাট কোহলি

ভারতের বিরুদ্ধে খেলা ও সফল হওয়া যে তার স্বপ্ন সাক্ষাৎকার চলাকালীন তা বারবার বলেছেন নাসিম। বয়স কম হলেও, তারমধ্যে সাহস ও আত্মবিশ্বাসেরল কোনও খামতি নেই। নাসিম বলেছেন,'ভারতের বিরুদ্ধে আমি ভাল বল করতে পারব বলেই বিশ্বাস রাখি। আমি ভক্তদের নিরাশ করব না, এটুকু বলতে পারি। বিরাট কোহালির জন্য বলতে পারি, ওকে আমি শ্রদ্ধা করি কিন্ত ভয় পাই না। বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যানকে বল করা সব সময়েই চ্যালেঞ্জের। এ রকম ক্ষেত্রে নিজের খেলাকে অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যেতে হয়। ভারত এবং বিরাট কোহালির বিরুদ্ধে খেলার জন্য আমি মুখিয়ে রয়েছি।'