বর্তমান যুগের ক্রিকেটে কোচেদের সব পরামর্শই যে দলের প্লেয়ারদের পছন্দ হয় তেমনটা নয়। কোচের রণনীতি, কোচিংয়ের ধরন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। কোচের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন ক্রিকেটাররা। এমন ঘটনাও ঘটেছে। কিন্তু কোচের পরামর্শ পছন্দ না হওয়ার সরাসরি কোচের গলায় ছুরি ধরার উদাহরণ হয়তো ক্রিকেট বিশ্বে বিরল। সেই বিরল অভিজ্ঞতার সাক্ষী হয়েছিলেন জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন ক্রিকেটার অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার। পাকিস্তানের কোচিং করানোর সময় এমন একটি ঘটনা ঘটেছিল বলে জানিয়েছন তিনি। আর এই ঘটনা ঘটনা ঘটিয়েছিলেন টেস্টে পাকিস্তানের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করা ইউনিস খান। 

আরও পড়ুনঃসৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দল হারানোর ক্ষমতা রাখে বিরাট কোহলির দলকে

২০১৪ থেকে ২০১৯, এই পাঁচ বছর পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ ছিলেন গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার। সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে  একটি অনুষ্ঠানে আলোচনা চলছিল।  সেখানেই তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয় যেসব শিষ্যকে সামলাতে কষ্ট করতে হয়েছে তাঁদের নিয়ে কিছু বলতে। তখনই গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার জানান,'২০১৬ সালে  পাকিস্তানের অস্ট্রেলিয়া সফরের সময়  ব্রিসবেন টেস্টের প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে আউট হয়ে যান ইউনিস খান। পর দিন সকালে প্রাতঃরাশের সময় আমি ওকে ওকে কিছু পরামর্শ দিতে যাই। আমি ভাল মতই জানতাম ওর কেরিয়া রেকর্ড দুর্দান্ত। পরিসংখ্যানের হিসেবে আমার সঙ্গে তাঁর কোনো তুলনাই চলে না। পাকিস্তানের ইতিহাসে টেস্টে সবচেয়ে বেশি রান তাঁর। তবে ও আমার পরামর্শটি সদয়ভাবে গ্রহণ করেনি৷ ও আমার গলায় কাছে একটি ছুরি ধরেছিল, মিকি আর্থার পাশেই বসেছিলেন৷ সে পর্যন্ত মিকি’র হস্তক্ষেপে ও শান্ত হয়েছিল।'

আরও পড়ুনঃবিশ্বকাপের মাঝেই স্ত্রীর সঙ্গে সঙ্গম উপভোগ,আলমারীতে বউ লুকিয়ে রাখতেন সাকলিন মুস্তাক

আরও পড়ুনঃবিশ্ব ক্রিকেটে ভারতীয় ক্রিকেটারদের এমন কিছু রেকর্ড,যা ভাঙা একপ্রকার অসম্ভব

তবে বিষয়টি নিয়ে কোনও ক্ষোভ নেই গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ারের। কারণ কোচিং করাতে গিয়ে এই ধরনের অভিজ্ঞতা তার বাল লাগেই বলে জানিয়ছেন। তিনি বলেন,'কোচিং করাতে গেলে এমন ঝামেলা একটু-আধটু পোহাতেই হয়, এগুলো অবশ্য কোচিংয়ের অংশ। পথটা খুব কঠিন, তবে আমি উপভোগ করেছি। আমার এখনো কত কিছু শেখার আছে। তবে এখন যে অবস্থানে আছি তাতে নিজেকে ভাগ্যবান ভাবতেই পারি।' কিন্তু গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ারের মুখ থেকে এমন একটা ঘটনা শোনার পর বিস্মিত হয়েছে ক্রিকেট বিশ্ব।