সপ্তাহ দুয়েক আগে প্রায় গোটা ভারতীয় ফুটবলটাকেই কোয়ালালামপুরে উড়িয়ে নিয়ে গিয়েছিল এএফসি। ভারতীয় ফুটবলের সব স্টেক হোল্ডারদের সামনে রেখে ভারতীয় ফুটবলের নতুন রূপরেখা সামনে এনেছিল এএফসি। সেই নতুন রোডম্যাপ মেনে নেওয়া ছাড়া আর কোনও উপায় খোলা ছিল না কোনও পক্ষের কাছেই। তাই গোটা বিষয়টা কার্যত সেদিনই চুড়ান্ত হয়ে যায়। এবার সেই রোডম্যাপেই পরে গেল সিলমোহর। শনিবার ভিয়েতনামে এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের এক্সিকিউটিভ কমিটির বৈঠকে চুড়ান্ত হয়ে যায়, এএফসির তৈরি করা নতুন রোডম্যাপেই ২০২৪-২৫ মরসুম পর্যন্ত এগিয়ে যাবে ভারতীয় ফুটবল। 

আরও পড়ুন - লাল হলুদের বিদেশি ব্রিগেডে ভারতীয় ছোঁয়া, দীপাবলির শুভেচ্ছা জানালেন কাসিমরা

এএফসি’র সিলমোহর পাওয়ার পর থেকেই ইন্ডিয়ান সুপার লিগ হয়ে গেল দেশের এক নম্বর লিগ। আইলিগ এবার থেকে কার্যত দ্বিতীয় ডিভেশন। তাই বলাই যায় দেশের এক নম্বর লিগের বাইরে ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান। এবার থেকে দ্বিতীয় ডিভিশন লিগ খেলবে দুই প্রধান। পাশাপাশি এবার থেকে এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের যোগ্যতা নির্নায়ক পর্বের ম্যাচ খেলবে আইএসএল চ্যাম্পিয়ন দল। আইলিগ চ্যাম্পিয়ন দল খেলবে এএফসি কাপ। তবে আগামী মরসুমে আরও দুটি দলকে আইএসএলে নেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সবাই মনে করছেন ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগানকে দেশের এক নম্বর লিগে তুলে আনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। তবে আইএসএল আয়োজকদের দাবি মানতে হবে তাদের। দিতে হবে ফ্রাঞ্জাইজি ফি। 

আরও পড়ুন - ‘বিসিসিআই ছাড়া অচল আইসিসি’ শশাঙ্ক মনোহরদের তোপ প্রাক্তন বোর্ড সভাপতির

তবে ২০২৪-২৫ মরসুম থেকে আইলিগ ও আইএসএল মিলে গিয়ে একটা লিগ শুরু হবে। এবং সেই লিগে থাকবে ওঠা নামা। আইএসএলের শেষ দুটি দল যেমন দ্বিতীয় ডিভিশনে নেমে যাবে তেমনই আইলিগ চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স উঠে আসবে আইএসএল। এই রোডম্যাপে জোড় দেওয়া হয়েছে আইএসএল ও আইলিগ ক্লাব গুলির ক্লাব লাইসেন্সিং প্রক্রিয়ার ওপরও। আপাতত এএফসির হস্তক্ষেপে কিছুটা হলেও হাঁফ ছেড়ে বাঁচল ভারতীয় ফুটবল ফেডারেশন। 

আরও পড়ুন - ভারত বাংলাদেশ ম্যাচে থাবা বসাতে পারে দিল্লির বায়ু দূষণ, চিন্তিত আয়োজকরা