মালোরকাকে ৪-০ গোলে হারিয়ে লকডাউন পরবর্তী লা লিগায় অভিযান শুরু করেছিল বার্সা। প্রথম ম্যাচেই দুরন্ত ফুটবল খেলে মেসিও প্রমাণ করেছিলেন করোনা ভাইরাস জং ধরাতে পারেনি তার ফুটবল স্কিলে। গোল করেছিলেন ও করিয়েছিলেন ফুটবলের যাদুকর। মালোরকার বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে জিতলেও, বার্সা সমর্থকরা ঘরের মাঠে প্রিয় দলের জয় দেখার জন্য অপেক্ষায় ছিলেন। মঙ্গলবার রাতে সদস্য,সমর্থকদের সেই প্রত্যাশাও পূরণ করে  দিল কিকে সোতিয়েনের দল। লা লিগার ম্যাচে ন্যু ক্যাম্পে লেগানেসকে ২-০ গোলে হারাল বার্সা। এই ম্যাচেও গোল করলেন লিওনেল মেসি।

আরও পড়ুনঃটানা অষ্টমবার বুন্দেশলিগা জয় বায়ার্ন মিউনিখের

ন্যু ক্যাম্পে প্রথম থেকে একটু ধরে শুরু করে বার্সা। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ায় আক্রমণের মাত্রাও। যদিও ম্যাচেসর প্রথম গোল পেতে বার্সাকে অপেক্ষা করতে হয়েছিল প্রথমার্ধের শেষ সময় পর্যন্ত। ম্যাচের ৪২ মিনিটে দলের হয়ে প্রথম গোলটি করেন আনসু ফাতি। প্রথমার্ধের খেলা শেষ ১-০ ব্যবধানেই। দ্বিতীয়ার্ধে গোলের জন্য ঝাপায় দুই দল। লেগানেসকে আটকাতেও যথেষ্ট বেগ পেতে হয় বার্সা ডিফেন্সকে। ম্য়াচের ৬৯ মিনিটে বক্সের ভিতর মেসিকে পাউল করে লেগানেস। যার ফলে পেনাল্টি পায় বার্সা। পেনাল্টি থেকে গোল করে দলরে ব্যবধান ২-০ করতে কোনও ভুল করেননি লিও মেসি।এই গোলের সুবাদে দেশ ও ক্লাবের জার্সি মিলিয়ে মোট ৬৯৯ বার প্রতিপক্ষের জালে বল জড়ালেন আর্জেন্তাইন তারকা। সুতরাং আরও একটি ব্যক্তিগত মাইলস্টোনের সামনে দাঁড়িয়ে পড়লেন এলএম টেন।

আরও পড়ুনঃতাহলে কি ২৬ সেপ্টেম্বর থেকেই শুরু হতে চলেছে আইপিএল

আরও পড়ুনঃতেন্ডুলকর লেন,কোহলি মোড় বা কপিল দেব স্ট্রিটে হতেই পারে আপনার স্বপ্নের বাড়ি

এই জয়ের ফলে ২৯ ম্যাচে বার্সেলোনার সংগ্রহ আপাতত ৬৪ পয়েন্ট। ২৮ ম্যাচে মাদ্রিদের দখলে রয়েছে ৫৯ পয়েন্ট। অর্থাৎ, জিদানদের থেকে মেসিরা এগিয়ে রয়েছেন ৫ পয়েন্টের ব্যবধানে। কিন্তু একটি ম্যাচ কম খেলেছে রিয়াল। ফলে রিয়াল ফের জয় পেলেই ব্যবধান কমে সেই ২ পয়েন্টেরই দাঁড়াবে। এখনও অনেক দূর যেতে হবে মেসিদের। ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে রিয়াল মাদ্রিদ। বার্সার ৯টি ও রিয়ালের ১০টি ম্যাচ বাকি থাকায় এই ইঁদুর দৌড় আপাতত চলতে থাকবে বলে ধারণা ফুটবলমহলের।