বায়ার্ন মিউনিখের বুন্দেশলিগা জয় যে শুধপ সময়ের অপেক্ষা তা মঙ্গলবার ওয়ার্ডার ব্রেমনের বিরুদ্ধে খেলতে নামার আগেই বলে দিয়েছিলেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা। আর আদতে ঘটলও তাই। ওয়ার্ডার ব্রেমনকে ১-০ গোলে হারিয়ে টানা অষ্টমবারের জন্য বুন্দেশলিগা ঘরে তুলল বায়ার্ন মিউনিখ। ম্যাচে বায়ার্নের হয়ে একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন এই মরসুমে লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেওনস্কি। চলতি মরসুমে এটা তার ৩১ তম গোলে। এই জয়ের সুবাদে লিগের আরও ২ ম্যাচ বাকি থাকতেই  ট্রফি নিজেদের নামে করে ফেলল হ্যান্সি ফ্লিকের দল।  একইসঙ্গে মোট ৩০ বার বুন্দেশলিগা জিতে অনন্য নজির সৃষ্টি করল জার্মান জায়ান্টরা। 

আরও পড়ুনঃতেন্ডুলকর লেন,কোহলি মোড় বা কপিল দেব স্ট্রিটে হতেই পারে আপনার স্বপ্নের বাড়ি

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই জয়ের জন্য ঝাঁপিয়েছিল বায়ার্ন। রিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে বায়ার্নের একের পর এক রুখে দিচ্ছিল ওয়ার্ডার। তাই ম্যাচে প্রথম গোল পেতে অপেক্ষা করতে হয় ৪৩ মিনিট পর্যন্ত। বায়ার্নের গোলমেশিন লেওনস্কির গোলে লিড পায় ফ্লিকের দল।  দ্বিতীয়ার্ধের দুই দলই আক্রমণের ঝড় তুললেও গোলের মুখ খুলতে সমর্থ হয়নি। ম্যাচের শেষ ১১ মিনিট ১০ জনে খেলতে হয় বায়ার্নকে। কেননা, লেফট ব্যাক ডেভিস ৭৯ মিনিটের মাথায় দ্বিতীয়বার হলুদ কার্ড দেখায় তাঁকে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ ছাড়ার নির্দেশ দেন রেফারি।  তার পরেও অবশ্য মানুয়েল নয়্যারদের হাত থেকে জয় ছিনিয়ে নিতে পারেনি ব্রেমেনের ফুটবলারেরা। একাধিক আক্রমণ প্রতিহত করে শেষ বাঁশি বাজা পর্যন্ত নিজেদের দূর্গ অক্ষত রাখেন বায়ার্ন গোলকিপার।

 

 

আরও পড়ুনঃতাহলে কি ২৬ সেপ্টেম্বর থেকেই শুরু হতে চলেছে আইপিএল

আরও পড়ুনঃক্রিকেট কোচ সুশান্তের ছাত্র এখন রিয়েল লাইফ আইপিএল ক্রিকেটার

ব্রেমেনের বিরুদ্ধে জয়ের সুবাদে ৩২ ম্যাচে বায়ার্নের পয়েন্ট দাঁড়ায় ৭৬। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের সংগ্রহ ৩১ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট। অর্থাৎ, শেষ তিনটি ম্যাচে জিতলেও ডর্টমুন্ডকে আটকে যেতে হবে ৭৫ পয়েন্টে। বায়ার্ন মিউনিখকে ছোঁয়া সম্ভব হবে না তাদের পক্ষে। জয়ের পর ক্লাবের পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়। ম্যাচ জয়ের ছবি দিয়ে লেখা হয়,'আমরা বুন্দেশলিগা চ্যাম্পিয়ন।' বুন্দেশলিগার পরে বায়ার্নের সামনে এ বার জার্মান কাপ জিতে দ্বিমুকুট দখলের সুযোগও থাকছে। ৪ জুলাই ফাইনালে তাদের সামনে বায়ার লেভারকুসেন। জার্মান কাপ জেতা বিষয়েও আত্মবিশ্বাসী হ্যান্সি ফ্লিকের দল।