ইউয়েফা আজকেই ঘোষণা করে জানিয়ে দিয়েছে যে চ্যাম্পিয়ন লিগের পরবর্তী অংশ আয়োজিত হবে পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের মাটিতে। ১২ দিনের সময় ব্যাবধানে গোটা প্রতিযোগিতাটি আয়োজিত হবে। ফাইনাল ম্যাচের ভেন্যুও নির্বাচিত করা হয়ে গেছে। বেনফিকার ঘরের মাঠ এস্তাদিও দা লুজে আয়োজন করা হবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালটি। ২৩ আগস্ট রোববার ঘরের মাঠে আয়োজিত হবে প্রতিযোগিতাটি। স্পোর্টিং সিপি-র ঘরের মাঠ এস্তাদিও জোসে আলভালাদে কে প্রতিযোগিতার আরেকটি ভেন্যু হিসাবে ব্যবহার করা হয়। 

আরও পড়ুনঃঅস্ট্রেলিয়ার মাটিতে পিঙ্ক বল টেস্ট চ্যালেঞ্জিং,মনে করেন রোহিত শর্মা

নকআউট পর্বে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সব রাউন্ডই সাধারণত হয় দুই লেগের। কিন্তু বদলে যাওয়া ফরম্যাটে এর কোয়ার্টার-ফাইনাল ও সেমি-ফাইনাল হবে এক লেগে। যদিও শেষ ষোলোর চারটি ম্যাচ অবশ্য এখনও বাকি আছে। ম্যানচেস্টার সিটি বনাম রিয়াল মাদ্রিদ, বায়ার্ন মিউনিখ বনাম চেলসি, জুভেন্তাস বনাম অলিম্পিক লিওঁ ও বার্সেলোনা বনাম নাপোলি লড়াইয়ের ফিরতি লেগ হবে আগামী ৭ ও ৮ অগাস্ট। এই ম্যাচগুলোর ভেন্যু অবশ্য নিশ্চিত হয়নি। হতে পারে একটি দলের ঘরের মাঠে, কিংবা পর্তুগালের নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। সেক্ষেত্রে অ্যাওয়ে গোলের নিয়মে কোনও পরিবর্তন আসে কিনা খেয়াল রাখতে হবে।

আরও পড়ুনঃফের ভোলবদল,কটাক্ষের পর এবার বিরাটেরও প্রশংসা করলেন গম্ভীর

আরও পড়ুনঃকরোনা যোদ্ধাদের উৎসর্গ করে প্রকাশ্যে আনা হল ২০২২ ফিফা বিশ্বকাপের স্টেডিয়ামের রূপ

এরই মধ্যে মহামারীর আগেই শেষ আটে জায়গা নিশ্চিত করেছে, পিএসজি, আতলেতিকো মাদ্রিদ, আটালান্তা ও লেপজিগ। মহামারীর জন্য বাকি ম্যাচগুলি দর্শকশূন্য মাঠে আয়োজনের সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন উয়েফা সভাপতি আলেকজান্দার কাফেরিন। অবশ্য খুব সামান্য সম্ভাবনা আছে প্রেক্ষাপট বদলের। আর একই সাথে যেহেতু এইবারের ফাইনাল ইস্তানবুল থেকে সরানো হয়েছে বাধ্য হয়ে তাই পরবর্তী মরশুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ভেন্যু ইস্তানবুলের আর্তাতুক অলিম্পিক স্টেডিয়ামই হতে পারে বলে জানা গিয়েছে।