ইতিমধ্যেই এটিকের সঙ্গে সংযুক্তি করে আগামি মরসুমে আইএসএল খেলা নিশ্চিত করে ফেলেছে মোহনবাগান। অপরদিকে মেয়াদ শেষের একমাস আগে চুক্তিভঙ্গ করায় কোয়েস ও ইষ্টবেঙ্গলের সম্পর্কের ইতি এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। ফলে ফের ইনভেস্টরহীন হতে চলেছে লাল-হলুদ শিবির। 
কিন্তু তারপরও পরের মরসুমের জন্য যেভাবে দল গোছাতে শুরু করেছে ইষ্টবেঙ্গল তা এককথায় সকলকেই চমকে দিয়েছে। দেশের সব সেরা প্লেয়ারদেরই কার্যত একই ছাতার নীচে নিয়ে এসেছে লাল-হলুদ  কর্তারা। একইসঙ্গে  ইনভেস্টরের নাম না জানালেও, লাল-হলুদ শীর্ষ কর্তারা আইএসএল খেলার বিষয়ে জোড়াল দাবি জানিয়ে আসছেন। এবার লাল-হলুদ কর্তাদের পাশে দাঁড়ালেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইষ্টবেঙ্গলকে আইএসএল কেলানোর সুপারিশ নিয়ে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থার  প্রেসিডেন্ট প্রফুল প্যাটেলকে ফোন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ময়দানের বটতলায় এই খবরই এখন সবার মুখে মুখে।

আরও পড়ুনঃপাকিস্তানে হিন্দু মন্দিরে গিয়ে ত্রাণ বিলি, মানবতার পুজারি আফ্রিদি

সূত্রের খবর, কয়েক দিন আগেই প্রফুল প্যাটেলকে ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রী। আইএসএলে যাতে ইষ্টবেঙ্গলের অন্তর্ভুক্তি করা যায় সেই বিষয়ে অনুরোধ করেন। এই বিষয়ে ইষ্টবেঙ্গল কর্তা  দেবব্রত সরকার জানিয়েছেন,”হ্যাঁ, এটা সত্যি যে মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী অনুগ্রহ করে ফেডারেশনের সভাপতিকে ফোন করেছেন। এবং এই ইস্যুতে ওঁর সাথে আলোচনা করেছেন।” কিন্তু তারপরও ইষ্টবেঙ্গলের কতটা লাভ হয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। কারণ মুখ্যমন্ত্রীর ফোনের পরও এআইএফএফের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ফেডারেশনের নিয়ম মেনেই তাঁদের আইএসএলে খেলার জন্য আবেদন করতে হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য ক্লাবকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন, নিয়মিত ফেডারেশনের সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মত ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছেন লাল-হলুদ কর্তারা।

আরও পড়ুনঃলাইভ শো-তে চাহলকে ট্রোলড করলেন বিরাট কোহলি, ভাইরাল ভিডিও

আরও পড়ুনঃধোনিকে আগ্রাসী ব্যাটসম্যান থেকে ফিনিশার তৈরি করেছি আমি, দাবি গ্রেগ চ্যাপেলের

এএফসির নিয়ম অনুযায়ী, ২০২৩-২৪ সালের আইলিগ চ্যাম্পিয়ন দল সরাসরি আইএসএল খেলার সুযোগ পাবে। দিতে হবে না কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি। শুধুমাত্র দেশের দুই ঐতিহাসিক ক্লাব ইষ্টবেঙ্গল-মোহনবাগানের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, আইএসএল খেলার জন্য যাবতীয় শর্ত পূরণ করলে সামনের মরশুমেই নিয়ে নেওয়া হবে। এভাবেই চলে এসেছে মোহনবাগান। এবার পালা ইস্টবেঙ্গলের। কবে ইনভেস্টরের নাম জানিয়ে আবেদন করবেন করেবন ইষ্টবেঙ্গল কর্তারা সেই অপেক্ষাতেই রয়েছে ফেডারেশন। এর মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করলেন ইষ্টবেঙ্গলের হয়ে। আগামী দিনেও মমতা বন্দ্যা পাধ্যায় কী পদক্ষেপ নেন লাল-হলুদের কথা ভেবে, মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে আদৌ কোনও কাজ হয় কিনা সেদিকেই তাকিয়ে লাল-হলুদ কর্তা, সমর্থক থেকে ফুটবল বিশেষজ্ঞরা। তবে সমস্যা থাকলেও ইষ্টবেঙ্গল য়ে পরের মরসুমে আইএসএল খেলতে বদ্ধপরিকর তা একপ্রকার নিশ্চিত।