জার্মানির ফুটবল লিগে অর্থাৎ বুন্দেশলিগায় খেতাবি লড়াই আবার হয়ে পড়েছে একমুখী। মরশুমের শুরুর দিকে ৫ থেকে ৬ টি দল খেতাবি লড়াইয়ে ছিল, এবং সেই সময় খেতাবি দৌড়ে বেশ খানিকটা পিছিয়েই ছিল শেষ সাত বারের বিজেতা বায়ার্ন মিউনিখ। মুনচেনগ্ল্যাডব্যাক, লেভারকুশেনের মতো ছোট  দলগুলি টেক্কা দিচ্ছিলো ডর্টমুন্ড, বায়ার্নের মতো দলগুলিকে। কিন্তু নতুন বছর শুরু হওয়ার পর থেকে পরিস্থিতি বদলে যায়। নতুন বছরে লিগে একটিও ম্যাচ না হেরে লিগ শীর্ষে উঠে আসে বায়ার্ন। ছন্দে ফিরেছিল ডর্টমুন্ডও। কিন্তু আগের ম্যাচে বায়ার্নের কাছে ১ গোলে হেরে তাদের থেকে ৭ পয়েন্টে পিছিয়ে পরে তারা। এখন বায়ার্নের টানা অষ্টম লিগ জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা।

আরও পড়ুনঃঅনুশীলন শুরু করল অজিরা,লকডাউনকে 'ওয়েলকাম ব্রেক' বললেন স্মিথ 

যদিও সেই হতাশা ধরা পড়েনি ডর্টমুন্ডের সাম্প্রতিক ম্যাচে। রবিবার লিগ টেবিলে সবচেয়ে নীচে থাকা প্যাডেরবর্ণকে তারা হারালো ৬-১ গোলে। আশ্চর্যজনক ভাবে ম্যাচের প্রথমার্ধে তারা কোনও গোল করতে পারেনি। ৬ টি গোলই ম্যাচের দ্বিতীয় ভাগে হয়। গোলকিপারের ভুলে ম্যাচের ৫৪ মিনিটে ম্যাচের প্রথম গোলটি করেন থ্রোগেন হ্যাজার্ড। তার পরে আর রোখা যায়নি ডর্টমুন্ডকে। ৫৭ এবং ৭৪ মিনিটে দুটি গোল করেন স্যানচো। ৭২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে ব্যাবধান কমায় প্যাডেরবর্ণ। কিন্তু ৮৫ মিনিটে হাকিমি এবং ৮৯ মিনিটে মার্সেলের গোলে সেই পেনাল্টি অর্থহীন হয়ে যায়। সংযুক্তি সময়ে দলের ষষ্ঠ গোল করে নিজের হ্যাটট্রিক নিশ্চিত করে স্যানচো।

আরও পড়ুনঃবল পালিশের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করা উচিৎ আইসিসির,জানালেন বুমরা

আরও পড়ুনঃকরোনা পরবর্তী সময়ে ক্রিকেটের পরিবর্তন নিয়ে উদ্বিগ্ন বিরাট কোহলি

এইদিন চোটের জন্য ডর্টমুন্ড পায়নি তরুণ প্রতিভাবান স্ট্রাইকার এর্লিং হাল্যান্ড-কে। চোটের জন্য এখনও মাঠের বাইরে ডর্টমুন্ডের নেতা মার্কো বয়েস। তাতে কোনও অসুবিধাই হয়নি ডর্টমুন্ডের। এইদিন কোচ শুরু থেকেই খেলান তরুণ তারকা জেডন স্যানচো-কে। তিনি এবং হাকিমি গোল করে জার্সি উঠিয়ে ইনারে লেখা আমেরিকায় পুলিশ কর্তৃক কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার যে নিন্দনীয় ঘটনা ঘটেছে তার প্রতিবাদ জানান।