বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর কাটল না ২৪ ঘণ্টা সময়ও। তার মধ্যেই রাজনীতি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিল প্রাক্তন ফুটবলার মেহতাব হোসেন। যা নিয়ে তোলপার রাজ্য রাজনীতি। রাজ্য বিজেপির কাছে এযেন অনেকটা সেমসাইড গোল খাওয়ার মতন। ইতিমধ্যেই নিজের সিদ্ধান্তের কথা বিজেপি নেতৃত্ব জানিয়ে দিয়েছেন মেহতাব হোসেন। কেন এক দিন যেতে না যেতেই রাজনীতি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিলেন মেহতব হোসেন তারজন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্টও করেছেন ইষ্টবেঙ্গল ও মোহনবাগানের প্রাক্তন অধিনায়ক। সেই পোস্টেই বিস্তারিতভাবে জানিয়েছে তার রাজনীতি ছাড়ার কারণ।

আরও পড়ুনঃ২০২০-২১ মরশুমের আইলিগ হতে চলেছে ফুটবলের মক্কা কলকাতায়

২১ জুলাই একদিকে যখন ভার্চুয়াল সভা থেকে ২০২১ সালে বিজেপির জামানত বাজেয়াপ্ত করার হুঙ্কার দিচ্ছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঠিক সময়ই বিজেপিতে যোগ দান করেন মেহতাব হোসেন। তার হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে স্বাগত জানান খোজ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বিজেপিতে যোগ দিয়ে মেহতাব জানিয়েছিলেন, সাধারণ মানুষের হয়ে আরও বেশি কাজ করার জন্যই তার  রাজনীতিতে আসা। একইসঙ্গে বিজেপি কোনও সাম্প্রদায়িক দল নয় বলেও জানান মেহতাব। যোগদানের পর বেশ ফুরফুরেই দেখিয়েছিল মেহতাবকে। কিন্তু ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই নিজেরি সিদ্ধান্ত বদল করায় অবাক সকলেই।

আরও পড়ুনঃআগামী সপ্তাহেই ঘোষণা আইপিএলের ক্রীড়াসূচি, হবে পূর্ণাঙ্গ টুর্নামেন্ট

আরও পড়ুনঃআগস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ দিয়েই কি মাঠে ফিরছ টিম ইন্ডিয়া

বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজনীতি ছাড়ার পোস্ট করে মেহতাব লেখেন,'আসলে পরিবারের সঙ্গে আলোচনা না করেই গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি। কিন্তু আমার পরিবার পরিজন থেকে আমার ফ্যান ও শুভাতকাঙ্খিরা কেউই এটা ভালভাবে নেননি। যাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমার রাজনীতিতে আসা, তারাই আমাকে অনুরোধ করে, আমি যেন রাজনীতিতে সরাসরি না যাই । মানে, কোথাও গিয়ে তাদের ভাবাবেগ যেন আমাকে রাজনীতিবিদ হিসেবে দেখতে চাইছে না । তাদের কাছে আমি এখনও ফুটবলার , মিডফিল্ড জেনারেল । ওদের ভালবাসাই আমাকে মেহতাব করে তুলেছিল । আমার পরিশ্রম আর স্বপ্নকে ওই মাঠে-ময়দানের মানুষগুলোই বাস্তবে পরিণত করেছিল । তাদের ওদের অনুরোধ আমাকে অনেক কিছু শিখিয়ে গেল । মনে হল , আমি যাদের জন্য রাজনীতিতে এলাম তারাই আমাকে এই বেশে দেখতে চাইছে না । তাহলে কিসের জন্য আমি নিজের সত্ত্বাটা বদলাতে চাইছি? কিসের জন্য নিজেকে এক লহমায় আলাদা করতে চাইলাম? তাই অনেক ভেবে সিদ্ধান্ত নিলাম, রাজনীতি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলাম।' এছাড়াও পোস্টে নিজের বিস্তারিক মতানত জানান প্রাক্তন ফুটবলার। কিন্তু রাজনৈতিক মহলের মতে,মেহতাবের এই পরিবর্তনে অনেকটাই বেকায়দায় পড়ে গেল রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব।